আপাতত স্থগিত থাকছে আইপিএল। শুক্রবার এক ঘোষণায় একথা জানিয়ে দিল বিসিসিআই। করোনাভাইরাস এই মুহূর্তে অতিমারির চেহারা নিয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সে কথা ঘোষণাও করেছে। একের পর এক ইভেন্ট-কে বাতিল করে দেওয়া হচ্ছে। এই অবস্থায় আইপিএল-এর এবারের ভবিষ্যৎ নিয়েও জল্পনা চলছিল। অবশেষে সমস্ত জল্পনা-কে সত্যি করে বিসিসিআই-এর ঘোষণা ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত থাকছে আইপিএল। এই তারিখের পর আইপিএল-এর ভবিষ্যৎ কী হবে তা নিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করেনি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। 

 

বিসিসিআই থেকে জারি করা একটি বিবৃতি-তে জানানো হয়েছে যে, 'সাধারণভাবে আইপিএল-এর সঙ্গে যুক্ত থাকাদের থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ে খুবই চিন্তাশীল এবং স্পর্শকাতর। এর জন্য সবধরনের সাবধনাতাকে নিশ্চিত করা হচ্ছে যাতে আমাদের ক্রিকেটপ্রেমীরা এবং আইপিএল-এর সঙ্গে যুক্ত থাকা মানুষজন একটা সুরক্ষিত ক্রিকেট প্রতিযোগিতাকে মাঠে এসে চাক্ষুষ করতে পারে।' এর থেকে বেশি কোনও বিবৃতি বিসিসিআই দেয়নি। তবে, এটা জানানো হয়েছে, এই পুরো সিদ্ধান্তটাই করোনাভাইরাসের বেড়ে চলা সংক্রমণ-কে মাথায় রেখে। আইপিএল-কে স্থগিত রাখার মধ্যে দিয়ে আসলে একটা পূর্ব সতর্কতা অবলম্বন করা হল বলেই দাবি করেছে বিসিসিআই। 

করোনাভাইরাসের থাবা চিন  ছাড়িয়ে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। রোজই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এমনকী মৃতের সংখ্যাও ৪ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা কয়েক লক্ষ। কর্ণাটকের কালবুর্গি এলাকায় এক ৭৬ বছরের বৃদ্ধ-র মৃত্যুর পিছনে করোনাভাইরাস-কে দায়ী করা হয়েছে। সরকারিভাবে একথা জানানো হয়েছে ওই মৃতের শরীরে করোনাভাইরাস-এর সংক্রমণ ছিল। এটা ভারতের প্রথম করোনায় মৃত্যু। মুর্শিদাবাদের একজনও মারা গিয়েছেন। তাঁকে আইসোলেশন ওযার্ডে রাখা হয়েছিল। কিন্তু, এই মৃত্যু-র জন্য করোনা দায়ী কি না তার মেডিক্যাল রিপোর্ট এখনও আসেনি। যদিও, করোনা আতঙ্কের জেড়ে আইসোলেশনে থাকা এই ব্যক্তির মৃত্যু পশ্চিমবঙ্গে ব্যাপক আলোড়ন ফেলে দিয়েছিল।  

বৃহস্পতিবার করোনাভাইরাসে আক্রান্তের তালিকায় নাম উঠে গিয়েছে বিখ্যাত হলিউড অভিনেতা টম হ্যাঙ্কস-এর। এছাড়াও তারকার মধ্যে করোনায় আক্রান্তের তালিকায় নাম উঠেছে- ক্রিকেটার কেন রিচার্ডসন, কানাডারে প্রেসিডেন্ট-এর স্ত্রী, জুভেন্তাসের এক ফুটবলার, ব্রিটেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী, ইরানের উপ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী-সহ আরও অনেকের নাম। রিয়াল মাদ্রিদ ক্লাবের পুরো দলটিকেই আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। টোকিও অলিম্পিক্স-ও পিছিয়ে দেওয়ার দাবি উঠেছে। এই পরিস্থিতিতে আইপিএল কীভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ার মতো সাহস বিসিসিআই দেখাতে পারে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছিল।