অবশেষে করোনার  কোপে ২০২১ মরসুমের আইপিএল। বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আপাতত এই মরসুমের আইপিএল স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দেশে করোনার ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি ও আইপিএলেও একের পর এক দলে করোনার থাবা, গ্রাউন্ড স্টাফদের করোনা পজেটিভ আসায় ক্রমশ আতঙ্ক বাড়ছিল সব দলের অন্দরে। তাই ক্রিকেটারদের নিয়ে ঝুঁকি না নিয়ে আইপিএল স্থগিত রাখার সিদ্ধান্তের পথে হাঁটল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। 

সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, ভারতীয় বোর্ডের ভাইস-প্রেসিডেন্ট রাজীব শুক্লা জানিয়ে দিয়েছেন, ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতিতে ক্রিকেটারদের সুরক্ষার কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত। একাধিক ফ্র্যাঞ্চাইজির অন্দরমহলে করোনা থাবা বসানোয় সূচি অনুযায়ী আইপিএল চালিয়া যাওয়া যে সম্ভব নয়, সেটা বুঝেই রণে ভঙ্গ দিল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। মঙ্গলবার বিজ্ঞপ্তি জারি করে বিসিসিআই জানায়, ‘আইপিএলের গর্ভনিং কাউন্সিল ও বিসিসিআই আপত্কালীন বৈঠকে সর্বসম্মতভাবে অবিলম্বে আইপিএল ২০২১ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।’ দেশের মাটিতে শত চেষ্টা করেও আইপিএলের সফল আয়োজন না করতে পারায় কিছুটা হলেও হতাশ বিসিসিআই।

 

 

মূলত একাধিক দলে করোনার থাবার কারমেই পিছু হটল বিসিসিআই। কলকাতা নাইট রাইডার্স, চেন্নাই সুপার কিংস, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ এবং দিল্লি ক্যাপিটালস দলের ক্রিকেটার এবং সদস্যরা করোনা আক্রান্ত হন। মঙ্গলবার জানা গিয়েছে ঋদ্ধিমান সাহা এবং অমিত মিশ্র করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। চেন্নাই দল ইতিমধ্যেই ৬ দিনের জন্য কঠোর নিভৃতবাসে রয়েছে। সুত্রের খবর, এই মুহূর্তে আইপিএল-এর ৬টি দল কঠোর নিভৃতবাসে রয়েছে।