নীতিশ রানার অনবদ্য ৮৭ রানের ইনিংসের সৌজন্যে আইপিএলের ডু অর ডাই ম্য়াচে সিএসকের বিরুদ্ধে  রান করল কেকেআর। নীতিশ রানা ছাড়া কেকেআরের আর কেউ বড় রান করতে পারেনি। এদিন টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন সিএসকে অধিনায়ক এমএস ধোনি। এদিন কেকেআরের হয়ে ওপেন করেন শুভমান গিল ও নীতিশ রানা। শুরুটাও বেশ ভালই করেন দুই ওপেনার। উইকেট বাঁচিয়ে আক্রমণাত্বক শট খেলেন তারা। প্রথম পাওয়ার প্লে বিনা উইকেট ৪৮ রান করে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

পাওয়ার প্লের পর নিজেদের মধ্যে অর্ধশতরানের পার্টনারশিপও পূরণ করেন  শুভমান গিল ও নীতিশ রানা। কিন্তু অষ্টম ওভারে ভাঙে তাজেক পার্টনারশিপ। দলের ৫৩ রানের মাথায় করণ শর্মার বলে আউট হন শুভমান গিল। ২৬ রান করেন তিনি। এরপর তাড়াতাড়ি রান তোলার জন্য নারিনকে নামানো হয়। কিন্ত নিরাশ করেন তিনি। মিচেল স্যান্টনারের  বলে ৭ রান করে আউট হন নারিন। এরপর রিঙ্কু সিং নেমে নীতিশ রানার সঙ্গে ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন তারা। কিন্তু ১৩ তম ওভারে রবীন্দ্র জাদেজার বলে ১১ রান করে আউট হন রিঙ্কু সিং। এরপর ক্রিজে আসেন ইয়ন মর্গ্যান। অপরদিক থেকে নিজের ইনিংস চালিয়ে যান নীতিশ রানা। ১৪ তম ওভারে নিজের অর্ধশতরান করেন তিনি। ৪৪  বলে পূরণ করেন হাফ সেঞ্চুরি। ১৫ ওভার শেষে কেকেআরের স্কোর দাঁড়ায় ১০৬ রানে ৩ উইকেট। 

শেষ ৫ ওভারে রানের গতিবেগ বাড়ানোর চেষ্টা করেন ইয়ন মর্গ্যান ও নীতিশ রানা। ১৭ ওভার শেষে কেকেআরের স্কোর দাঁড়ায় ১৩৬ রানে ৩ উইকেট। কিন্তু ১৮ তম ওভারের প্রথম বলে আউট হন নীতিশ রানা। লুঙ্গি এনগিডির বলে ৮৭ রান করে আউট হন তিনি। এরপর নামে দীনেশ কার্তিক। ১৮ ওভারের শেষে নাইটদের স্কোর দাঁড়ায় ১৫০ রানে ৪ উইকেট। শেষে ঝোড়ো ইনিংস খেলেন দীনেশ কার্তিক। বেশ কয়েকটি বাউন্ডারি মারেন তিনি। ১৯ তম ওভারে আসে ১৩ রান। শেষ ওভারে লুঙ্গি এনগিডির বলে আউট হন ইয়ন মর্গ্যান। ১৫ রান করেন কেকেআর অধিনায়ক। শেষ ওভারে আসে ৯ রান। ২০ ওভারের কেকেআরের ইনিংস শেষ হয় ৫ উইকেটে ১৭২ রানে। সিএসকের টার্গেট ১৭৩ রান।