আইপিএলের গুরুত্বপূর্ণ ম্য়াচে আজ মুখোমুখি চেন্নাই সুপার কিংস ও দিল্লি ক্যাপিটালস।  একদিকে প্রথম ম্যাচে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে জয় পেয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস। দ্বিতীয় ম্যাচেও জয়ের ধারা বজায় রাখতে মরিয়া শ্রেয়স আইয়রের দল। অপরদিকে আইপিএলের প্রথম ম্যাচে জয় পেলেও, দ্বিতীয় ম্যাচে মুম্বইয়ের কাছে হারতে হয়েছে চেন্নাই সুপার কিংসকে। তবে দিল্লির বিরুদ্ধে জয়ে ফিরতে মরিয়া এমএস ধোনির দল। এদিন টসে জিতে প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন এমএস ধোনি। দ্বিতীয় ব্যাটিংয়ে ডিউয়ের সুবিধা নিতেই এই সিদ্ধান্ত সিএসকে অধিনায়কের।

দলগত শক্তির বিচারে দুই দলই যথেষ্ট শক্তিশালি। চেন্নাই দলের ব্যাটিং লাইনআপে রয়েছে যেমন শেন ওয়াটস, ফাফ ডুপ্লেসি, কেদার যাদবের মত তারকারা। অপরদিকে নীচের দিকে হিটার হিসেবে রয়েছেন খোদস এমএস ধোনি। গত ম্যাচে দল হারলেও, ধোনির ব্যাটের ঝলক দেখতে পেয়েছিলেন সকলেই। এছাড়াও রয়েছে স্যাম কুরান, রবীন্দ্র জাদেজার মত নাম। যারা মারকাটারি ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বল হাতেও ম্যাচের মোড় বদলে দিতে পারে। এছাড়াও বোলিং লাইনআপে রয়েছে দীপক চাহার, পীযুষ চাওলা, লুঙ্গি অনগিডির মত নাম।

অপরদিকে অন্যান্যবারের তুলনায় দিল্লি দল এবার যথেষ্ট শক্তিশালী। বিশেষ করে ব্য়াটিং লাইনআপে একে বারে নীচ পর্যন্ত ম্যাচ উইনারের ছড়াছড়ি। শিখর ধওয়ান, পৃথ্বী শ, শ্রেয়স আইয়র, ঋষভ পন্থ, মারাক্স স্টয়নিস। এরা প্রত্যেকেই তারকা প্লেয়ার। তবে দিল্লির ব্যাটিংয়ের ওপেনিং জুটির রানের খরা নিয়ে একটু দুঃশ্চিন্তা রয়েছে দলের। নীতের দিকে দলের স্পিন অ্যাটাকে রয়ছে অক্সর প্যাটেল, আর অশ্বিন/অমিত মিশ্রর মতো তারকারা। এছাড়া পেস বোলিং লাইনআপে রয়েছে কাগিসো রাবাডা, নর্ৎজে, মোহিত শর্মার মত নাম। দুদলের মুখোমুখি সাক্ষাৎ হয়েছে ২১ বার। যার মধ্যে ১৫ বার জিতেছে সিএসকে ও ৬ বার জিতেছে দিল্লি। ফলে পরিসংখ্যানের দিক থেকে অনেকটাই এগিয়ে চেন্নাই। কিন্তু এই বছর নতুন ইতিহাস লিখতে ও প্রথমবার আইপিএল ট্রফি জয়ের লক্ষ্যেই এগোতে চাইছে রিকি পন্টিংয়ের দল। ফলে আরও একটি টান ম্যাচ দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেট বিশ্ব।