আজ সুপার সানডেতে আইপিএলের অপর মেগা ফাইটে মুখোমুখি কলকাতা নাইট রাইডার্স ও রাজস্থান রয়্যালস। প্লে অফে যেতে হে দুই দলের কাছে মাস্ট উইন এই ম্যাচ। বিশেষ করে কেকেআর নেট রান রেটে এতটাই পিছিয়ে রয়েছে যে এই ম্যাচ বড় ব্যবধানে জিততে হবে ইয়ন মর্গ্যানের দলকে। পঞ্জাব ও সিএসকের কাছে পরপর দুটি ম্যাচ হেরে লিগ টেবিলের সপ্তম স্থানে নেমে এসেছে নাইটরা। মরসুম প্রথম থেকেই ধারাবাহিকতার অভাব ভুগেছে নাইটরা। অধিনায়ক বদল থেকে ওপেনিং জুটি ঠিক করতে না পারা। বোলিং ললাইনআপেও বরুণ চক্রবর্তী ছাড়া কেউই ধাবাহিকভাবে ভাল বল করতে পারেননি। যার কারণেই দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গিয়েছে দুবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়নদের। তবে আজকের ম্যাচের গুরুত্ব ভালো করেই জানেন কেকেআর প্লেয়াররা। তাই নিজেদের সেরাটা উজার করে দিতে মরিয়া নাইট শিবির।

অপরদিকে, শেষ দুই ম্যাচে মুম্বই ও পঞ্জাবকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছে রাজস্থান রয়্যালস। প্লে অফে যাওয়ার সুযোগও তৈরি হয়েছে অধিনায়ক স্টিভ স্মিথের দলের। আজ দুবাইতে কেকেআরের বিরুদ্ধেও জয় পেতে বদ্ধপরিকর রয়্যালসরা। ব্যাটিং লাইনআপে বেন স্টোক, রবিন উথাপ্পা, স্টিভ স্মিথ, সঞ্জু স্যামসন, জস বাটলার সকলেই রানের মধ্যে ফেরায় শক্তি বহুগুণ বেড়ে গিয়েছে রাজস্থান রয়্যালসের। অপরদিকে বোলিং ললাইনআপেও দুরন্ত ছন্দে রয়েছেন জোফ্রা আর্চার। বল হাতেও গত ম্যাচে দুই উইকেট পেয়েছেন বেন স্টোকস। তবে কার্তাক ত্যাগি, শ্রেয়স গোপাল, বরুণ অরুণদের ফর্ম নিয়ে কিছুটা চিন্তায় রয়েছে রয়্যালস শিবির। তবে আজকের ম্যাচে দলগত শক্তিতে টীননী তৃতীয় জয় পাওার বিষে আশাবাদী রয়্যালসরা।

পিচ ও ওয়েদার রিপোর্ট-
দুবাইয়ের উইকেটও ব্যাটিং সাহায়ক। বিশেষ করে পাওয়ার প্লে রান তুলতে খুব একটা সমস্যার সম্মুখীন পড়তে হচ্ছে না ব্যাটসম্যানদের। কিন্তু একটানা অনেক ম্যাচ হওয়ায় উইকেট কিছুটা স্লো হয়েছে আগের তুলনায়। তাই স্পিনাররা একটু বাড়তি সুবিধা পাবে। আজ দুবাইয়ের তাপমাত্রা থাকবে ৩০ ডিগ্রির আশেপাশে। আরও বাড়তে পারে আদ্রতাজনিত অস্বস্তি।

ম্যাচ প্রেডিকশন-
দুবাইয়ের উইকেট যেহেতু ব্যাটিং সহায়ক। দুই ইনিংসেই খুব একটা পরিবর্তন হয় না পিচের। আর দুই দলেই রয়েছে একাধিক তারকা ব্যাটসম্যান। তাই সেইভাবে ম্যাচের প্রেডিকশন করা সহজ নয়। তবে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন এই ম্যাচে যেই দল দ্বিতীয় ব্যাটিং করবে তাদের জয়ের সম্ভাবনা বেশি।