হার দিয়ে আইপিএল ২০২০-র অভিযান শুরু করল কলকাতা নাইট রাইডার্স। মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের কাছে ৪৯  রানে হার দীনেশ কার্তিকের দলের। প্রথম ম্যাচে হারের পর প্রতিযোগিতায় দুরন্তভাবে কামব্যাক করল রোহিত শর্মার দল। ব্যাট হাতেও ৮০ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন তিনি। এদিন টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় কেকেআর অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। মুম্বইয়ের হয়ে ওপেন করতে নামেন অধিনায়ক রোহিত শর্মার ও কুইন্টন ডিকক। কিন্তু শুরুতেই শিবম মাভির বলে আউট হয়ে যান ডিকক। ৮ রানে প্রথম উইকেট পড়ে মুম্বইয়ের। প্রথম উইকেট পড়ার পর ক্রিজে আসেন সূর্যকুমার যাদব। তারপর বিদ্ধংসী রূপ নেয় মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের দুই তারকা ব্যাটসম্যান। একের পর এক কেকেআর বোলারদের বিরুদ্ধে আক্রমণ সানান রোহিত শর্মা ও সূর্যকুমার যাদব। দ্বিতীয় উইকেট পাওয়ার জন্য ১১ তম ওভারর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় কেকেআরকে। ২৮ বলে ৪৭ রানে দুরন্ত ইনিংস খেলে রান আউট হন তিনি। ৯৮ দ্বিতীয় উইকেট পড়ে মুম্বইয়ের। 

অপরদিক থেকে নিজের হিটম্য়ান শো চালিয়ে যান রোহিত শর্মা। তিনি নিজের অর্ধশতরানও পূরণ করেন। হাফ সেঞ্চুরি করার পর আরও বিধ্বংসী রূপ নেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক। তাকে যোগ্য সঙ্গত দেন সৌরভ তিওয়ারি। ১৬ তম ওভারের শুরুতেই তৃতীয় উইকেট পড়ে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের। সুনীল নারিনের বলে আউট হন সৌরভ তিওয়ারি। ২১ রানের ইনিংস খেলে তিনি। এরপর ক্রিজে আসেন হার্দিক পান্ডিয়া। প্যাট কামিন্সের ১৭ তম ওভারেও ১৯ রান নেয় মুম্বই। অবশেষে ১৮ তম ওভারে আউট হন রোহিত শর্মা। শিবম মাভির বলে ৫৪ বলে ৮০ রানের ইনিংস খেলে ক্যাচ আউট হন তিনি। ৬টি ছয় ও ৩টি চারে সাজানো ছিল রোহিত শর্মার ইনিংস।  ১৯ তম ওভারে রাসেলের বলে অদ্ভূতভাবে হিট উইকেট আউট হন হার্দিক পান্ডিয়া। ১৮ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। ২০ ওভারে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের ইনিংস শেষ হয় ১৯৫ রানে। কেকেআরের হয়ে ২টি উইকেট নেন মাভি, একটি করে উইকেট পান নারিন ও রাসেল। 

১৯৬ রানেরর তাড়া করতে নেমে শুরুতেই দুটি উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে কেকেআর। ট্রেন্ট বোল্টের বলে ব্যক্তিগত ৭ রানে আউট হন শুভমান গিল ও জেমস প্য়াটিনসনে বলে ব্যক্তিগত ৯ রানে আউট হন সুনীল নারিন। এরপরর ইনিংসের রাশ ধরেন দীনেশ কার্তিক ও নীতিশ রানা। ধীরে ধীরে কেকেআরের ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যান তারা। পাওয়ারর প্লে-তে ৬ ওভারে ৩৩ রান কররে কেকেআরর। সুযোগ পেলে বাউন্ডারিও মারেন তারা। ১০ ওভারে ৭১ রানে পৌছায় কেকেআরের ইনিংস। কিন্তু ১১ ওভারের প্রথম বলেই রাহুল চাহের বলে এলবিডব্লু আউট হয়ে প্যাভেলিয়নে পেরত যান কেকেআর অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। ২৩ বলে ৩০ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। ১২ তম ওভারে চতুর্থ উইকেট পড়ে কেকেআরের। পোলার্ডের বলে আউট হন নীতিশ রানা। ২৪ করেন তিনি। এরপর কেকেআরে ইনিংসকে ও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব নেন মর্গ্যান ও রাসেল।  ১৫ ওভারের শেষে কেকেআরের রান দাঁড়ায় ১০০ রানে ৪ উইকেট। 

১৬ তম ওভারের শুরুতে কেকেআরকে সব থেকে বড় ধাক্কাটা দেন জসপ্রীত বুমরা। ১১ রান করে বোল্ড হন আন্দ্রে রাসেল। একই ওভারে মর্গ্যানকেও আউট করেন বুমরা। ১৬ রান করে আউট হন তিনি। পরপর দুই উইকেট হারিয়ে ম্যাচ হারা কার্যত সময়ের অপেক্ষা হয়ে দাঁড়ায়। ১৭ তম ওভারে নিখিল নায়ককে আউট করেন ট্রেন্ট বোল্ট। ১০৩ রানে সপ্তম উইকেটের পতন হয় কেকেআরের। শেষের দিকে কিছুটা কেকেআরের হয়ে লড়াই দেওয়ার চেষ্টা করেন প্য়াট কামিন্স। ১৮ তম ওভারে বুমরাকে ৪টি ছয় মারেন কামিন্স। তবে ১৯ তম ওভারে প্যাটিনসনে বলে আউট হন কামিন্স। ১২ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। শেষ ওবারে রাহল চাহরের বলে আউট হন শিবম মাভি। অবশেষে ২০ ওভারে ১৪৬ রানে ৯ উইকেটে শেষ হয় কেকেআরের ইনিংস। ২টি করে মুম্বইয়ের হয়ে উইকেট পান বোল্ট, প্যাটিনসন, বুমরা ও চাহর। একটি উইকেট পান     পোলার্ড। ৪৯ রানে ম্য়াচ দিতে গ্রুপ টেবিলে শীর্ষে উঠে আসল রোহিত শর্মার মুম্বই ইন্ডিয়ান্স।