শারজার ছোট মাঠ, ব্যাটসম্যানদের স্বর্গরাজ্যের মত উইকেট। বড় রানের ম্যাচ যে হতে চলেছে তার পূর্বাভাস আগে থেকেই ছিল। কিন্তু সেই ম্যাচ যে করোনা আবহে আইপিএলের ইতিহাসে সেরা ম্যাচ হতে চলেছে সেই আভাস হয়তো কারও কাছেই ছিলনা। কিন্তু সুপার সানডের শারজা শুধু আইপিএল নয়, টি২০ ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম সেরা ম্যাচ উপহার দিল। যা দেখে ধন্য ধন্য করছে পুরো ক্রিকেট বিশ্ব। আইপিএলকে বিশ্বের সেরা লিগ বললেন বিসিসিআই প্রেসিডডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। 

শারজায় টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন স্টিভ স্মিথ। টার্গেট অনুযায়ী ব্যাটিং স্ট্র্যাটেজি ঠিক করার জন্যই রাজস্থান অধিনায়ক নিয়েছিলেন এই সিদ্ধান্ত। ব্যাট করতে নেমে কেএল রাহুল ও মায়াঙ্ক আগরওয়ালের ঝড়ের সামনে কার্যত অসহায় হয়ে পড়ে রাজস্থানের বোলিং লাইন আপ। মায়াঙ্কের ১০৬ ও রাহুলের ৬৯ রানের সৌজন্যে ২২৩ রানের বিশাল স্কোর খাড়া করেছিল পঞ্জাব। তখনও তাবড় তাবড় ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা ভাবেননি চেস হতে পারে এই রান। কিন্তু স্টিভ স্মিথ, সঞ্জু স্যামসন, রাহুল তেওয়াটিয়াদের ইচ্ছা ছিল ভিন্ন। অবিশ্বাস্যভাবে সেই রান চেজ করে রাজস্থান। যা ঐইপিএলের ইতিহাসে সেরা চেজ।

আইপিএলের ইতিহাসে সেরা ম্যাচ দেখে নিজের আবেগ চেপে রাখতে পারেননি বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। এছাড়া এত বাধা বিপত্তি পেরিয়ে যে আইপিএল অনুষ্ঠিত হচ্ছে তার এর থেকে বড় ব্র্যান্ডিং কিছু হতেই পারেনা। উচ্ছ্বসিত সৌরভ ট্যুইটারে লিখলেন,'হোয়্যাট আ গেময। এই কারণেই বিশ্বের সেরা লিগ এটাই। অবিশ্বাস্য সব প্রতিভা।' মাস্টার ব্লাস্টার সচিন তেন্ডুলকরও এই ম্য়াচের আবেগ থেকে নিজেকে সরিয়ে রাখতে পারেননি। সচিন তেন্ডুলকর ম্যাচের মাঝে একাধিক টুইট করেন। ম্যাচ শেষ হওয়ার পর একটি টুইটে তিনি লেখেন, ‘বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে রাজস্থান রয়্যালসের ব্যাটসম্যান স্মিথ, সঞ্জু, তেওয়াটিয়ার দুর্ধর্ষ ব্যাটিং। মাথা ঠান্ডা রেখে রানের গতি বাড়িয়ে গেল ওরা। অবিশ্বাস্য’। শুধু সচিন-সৌরভ নয়, আইপিএলের ইতিহাসে সেরা ম্যাচ দেখে স্তম্ভিত গোটা ক্রিকেট বিশ্ব।