আইপিএলের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে দুরন্ত ব্যাটিং সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। ব্যাট হাতে অনবদ্য পারফর্ম করলেন জনি বেয়ারস্টো ও ডেভিড ওয়ার্নার জুটি। ২০ ওভার শেষে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের স্কোর ২০১ রান। এদিন টসে জিতে ব্য়াটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। ব্য়াট করতে নেমে দুরন্ত শুরু করেন দুই ওপেনার জনি বেয়ারস্টো ও ডেভিড ওয়ার্নার। শুরু থেকেই আক্রমণাত্বক শট খেলতে শুরু করেন দুই ব্যাটসম্যান। শামি, কটরেল থেকে শুরু করে মুজিব, বিষ্ণোই সকলেই প্রহার করেন ওয়ার্নার-বেয়ারস্টো জুটি। বিশেষ করে বিধ্বংসী মেজাজে ব্যাট করেন জনি বেয়ারস্টো। পাওয়ার প্লে-র ৬ ওভার শেষে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের স্কোর দাঁড়ায় বিনা উইকেটে ৫৮ রান।

পাওয়ার প্লে-র পরও নিজেদের আক্রমণাত্বক ব্য়াটিং চালিয়ে যান হায়দরবাদের দুই ওপেনার। স্পিনাররাও রক্ষে পাননি দুই তারকার হাত থেকে। ওবার পিছু ১০ রান রেটে ব্যাট করতে থাকেন তারা। ১০ ওভারের আগেই নিজের হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন জনি বেয়ারস্টো। ১০ ওভার শেষে সানরাইজার্সের স্কোর দাঁড়ায় ১০ ওভারে ১০০ রান। ১০ ওভার পর রানের গতিবেগ আরও বাড়িয়ে দেন দুই ওপেনার। ১২ ওভার শেষে সানরাইজার্সের স্কোর দাঁড়ায় বিনা উইকেটে ১৩০ রান। এরই মধ্যে নিজের অর্ধশতরান পূরণ করেন ডেভিড ওয়ার্নার। ১৪ তম ওভারে ১৫০ রানের পার্টনারশিপও পূরণ করেন ওয়ার্নার-বেয়ারস্টো জুটি। ১৫ ওভার শেষে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের রান বিনা উইকেটে ১৬০ রান। 

অবশেষে ১৬ তম ওভারের প্রথম বলে আউট হন ডেভিড ওয়ার্নার। রবি বিষ্ণোইয়ের বলে ৫২ রান করে আউট হন তিনি। একই ওভারে জনি বেয়ারস্টো কে আউট করে হায়দরাবাদকে দ্বিতীয় ধাক্কা দেন বিষ্ণোই। ১৬ ওভার শেষে সানরাইজার্সের স্কোর দাঁড়ায় ১৬১ রানে ২ উইকেট। ১৭ ওভারের শুরুতেই আরও একটি উইকেট পড়ে হায়দরাবাদের। আর্শদীপ সিংয়ের বলে ২ রান করে আউট হন মণীশ পাণ্ডে। ১৮ তম ওভারে আরও একটি উইকেট সানরাইজার্সের। রবি বিষ্ণোইয়ের বলে আউট হন আবদুল সামাদ। ১৯ তম ওভারে পঞ্চম উইকেট পড়ে সানরাইজার্স। আর্শদীপের বলে আউট হন প্রিয়ম গর্গ। ১৯ ওভার শেষে হায়দরাবাদের স্কোর দাঁড়ায় ১৮৭ রানে ৫ উইকেট।  ১৯ তম ওভারে ষষ্ঠ উইকেট পড়ে। শামির বলে আউট হন অভিষেক শর্মা। তিনি করেন ১২ রান। ২০ ওভার শেষে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের স্কোর দাঁড়ায় ২০১ রান।  জয়ের জন্য কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের টার্গেট ২০২ রান।