তৃতীয় ম্যাচেও অব্যাহত থাকল এটিকে মোহনবাগানের জয়ের ধারা। হাড্ডাহাড্ডি ম্য়াচে শেষ মুহূর্তের গোলে জয় পেল অ্যান্টোনিও লোপেজ হাবাসের দল। দ্বিতীয়ার্ধের ইনজুরি টাইমের শেষ মুহূর্তে গোল করে সবুজ-মেরুণের ত্রাতার ভূমিকায় ফের রয় কৃষ্ণা। তিন ম্যাচ টানা জিতে লিগ টেবিলের শীর্ষে পৌছে গেল হাবাসের দল। অপরদিকে, ৩ ম্যাচ পরেও জয় অধরা থেকে গেল ওড়িশা এফসির। ৯৪ মিনিট পর্যন্ত লড়াই করেও শেষ মুহূর্তের গোলে পরাজয়ে হতাশ  উইলিয়াম ব্যাক্সটারের দল। 

এদিন প্রথম থেকেই টান টান উত্তেজনায় শুরু হয় খেলা। তবে প্রথমার্ধে একটু সাবধানীভাবে খেলে দুই দলই। রক্ষণ সামলে আক্রমণে যাওয়ার চেষ্টা করে এটিকে মোহনবাগান ও ওড়িশা এফসি। মাঝমাঠের দখল নেওয়ারও চেষ্টা করে দুই দল। শেষ দুই ম্য়াচে জয় না পেলেও, এদিন হাবাসের দলের বিরুদ্ধে প্রথমার্ধে এক ইঞ্চিও জমি ছাড়েনি ব্য়াক্সটারের দল। প্রথমার্ধে দুই দলই কয়েকটি সুযোগ তৈরি করলেও, জালে বল জড়াতে পারেন দুই দলের প্লেয়াররা। তবে প্রথমার্ধের খেলায় প্রতীদ্বন্দ্বীতা ছিল দেখার মত। বল পজিশনে কিছুটা এগিয়ে এটিকে মোহনবাগান।

দ্বিতীয়ার্ধে গোলর জন্য ঝাপায় দুই দলই। একাধিক আক্রমণও গড়ে তোলে এটিকেএমবি ও ওড়িশা এফসি। কিন্তু দুই দলের জমাটি রণ ভাঙতে সমর্থ হচ্ছিলেন দুই দলের আক্রমণ বিভাগের প্লেয়াররা। ম্য়াচের ৯০ মিনিট পর্যন্ত খেলার ফল ছিল গোলশূন্য। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধের ইনজুরি টাইমের শেষ মুহূর্তে ৯৫ মিনিটে গোল করে দলকে জয় এনে দেন রয় কৃষ্ণা। শুধু দলকে পরপর তিন ম্য়াচে জয় এনে দেওয়াই নয়, তিন ম্য়াচে নিজের গোলের ধারাও বজায় রাখলেন সবুজ মেরুণ তারকা। এই জয়ের ফলে ৩ ম্য়াচে ৯ পয়েন্ট লিগ টেবিলের শীর্ষে পৌছে গেল এটিকে মোহনবাগান।