সাত সকালে বাইসনের তাণ্ডবে ঘুম ভাঙল ধুপগুড়ির। চাষের এলাকায় বাইসন ঢুকে পড়ায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। তড়িঘড়ি খবর দেওয়া হয় বন দফতরকে। পরে ঘুমপাড়ানি গুলি করে বাইসনকে আয়ত্তে আনেন বনকর্মীরা। 

ধুপগুড়ি পুরসভা এলাকায় বাইসনের তাণ্ডবে জখম হয়েছেন ৯ জন। এলাকার বাসিন্দারা জানান, তাদের বাগান ও  চাষের এলাকা তছনছ করে দেয় বাইসন। বনকর্মীরা ঘটনাস্থলে আসার আগে স্থানীয় মানুষজন বাইসনকে তাড়ানোর চেষ্টা করেও লাভ হয়নি। পরে বনকর্মীরা এলেও সহজে বাগে আসেনি বাইসন। শেষমেশ ঘুমপাড়ানি গুলি করে বাইসন কাবু করার চেস্টা করেন বনকর্মীরা। 

এলাকাবাসীরা জানান, সামান্য কিছু সময়ের মধ্য়েই কয়েকটি ওয়ার্ডে দাপিয়ে বেড়ায় মাত্র ১ টি বাইসন। কোন জঙ্গল থেকে ওই বাইসনটি এলাকায় এসেছে, তা নিয়ে খোঁজ চলছে। ধুপগুড়ি পুরসভার ১ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডে ঢোকার পর থেকেই এলাকায় আতঙ্ক ছড়ায়। খুট্টিমারি ও মোরাঘাট জঙ্গল থেকে এই বাইসন আসতে পারে বলে অনুমান করেছেন স্থানীয়রা। তাদের অনুমান, সাধারণত দলবদ্ধ হয়ে কোনও জায়গায় যায় বাইসনের পাল। এক্ষেত্রে কোনওভাবে একটি বাইসন দলছুট হয়ে যাওয়াতেই এই বিপত্তি ঘটেছে।

জানা গেছে, বাইসনের হামলায় ৯ জন আহতের মধ্য়ে ৩ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। অন্য দুজনকে মেডিকেল কলেজ  ও বাকিদের জলপাইগুড়িহাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। এদের মধ্য়ে বেশ কয়েকজনের আঘাত গুরুতর বলে জানা গিয়েছে।