শাজাহান আলি, মেদিনীপুর:  প্রকৃতির রোষে প্রাণ যাচ্ছে মানুষের। এবার একইদিনে বজ্রপাতে মারা গেলেন দু'জন মহিলা-সহ পাঁচজন। গুরুতর আহত কমপক্ষে ২২ জন। মর্মান্তিক ঘটনার সাক্ষী থাকল ঝাড়গ্রাম। 

আরও পড়ুন: অমাবস্যায় সমুদ্রে ভরা কোটাল, বিরল ঘটনার সাক্ষী থাকল দিঘা

একজনের নাম শেখ মুক্তার আর একজনের নেপাল মুর্মু। বাড়ি,  ঝাড়গ্রামের জামবনি ব্লকের পড়হাটি পঞ্চায়েতের দুটি গ্রামে। সোমবার নিজেদের জমিতে কাজ করছিলেন মুক্তার ও নেপাল। তখন আচমকাই বাজে পড়ে। ঘটনাস্থলেই মারা যান দু'জনই। এদিকে আবার সাঁকরাইল ব্লকের দুধিয়ানালা গ্রামে চাষে জমিতে যখন বাজ পড়ে, তখন মাঠে কাজ করছিলেন তিনজন মহিলা। প্রাণ হারিয়েছেন দু'জন, আর একজন গুরুতর আহত হয়ে ভর্তি হাসপাতালে। তাঁর শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: 'ডাক এলেই পৌঁছে যাব', শরীরে করোনার ভ্যাকসিন পরীক্ষার আবেদন বীরভূমের শিক্ষকের

এর আগে রবিবার দুপুরে ঝাড়গ্রামের গোপীবল্লভপুর ১ নম্বর ব্লকের মহুলী গ্রামে বজ্রপাতের মৃতপ্রায় অবস্থায় এক প্রৌঢ়কে উদ্ধার করেছিলেন পরিবারের লোকেরা। সোমবার তিনিও মারা গিয়েছেন। স্থানীয় সূত্রের খবর, ঘটনার দিন দুপুরে বৃষ্টি শুরু হওয়ার পর গরুকে ফিরিয়ে আনতে মাঠে গিয়েছিলেন ফুদিল মহাপাত্র নামে ওই প্রৌঢ়।  জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর, গত দু'দিনে ঝাড়গ্রামে মাঠে কাজ করতে গিয়ে বজ্রপাতে আহত হয়েছেন ২২ জন।