সংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয়, বহু ইতিহাসের সাক্ষী এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এক সময়ে এখানেই শিক্ষকতা করেছেন ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর মহাশয়। এহেন সংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয়ের গুদামঘর থেকে উদ্ধার হল ২টি পুরনো সিন্দুক। এগুলির বয়স দুশো বছরেরও বেশি।

তবে এই সিন্দুক খুলতে গিয়ে হল নাজেহাল অবস্থা। লেগে গেল চার ঘণ্টারও বেশি সময়। চাবি তৈরি করে খোলা না যাওয়ায় ভাঙতে হয় সিন্দুগুলি। প্রথমটি খুব তাড়াতাড়ি ভাঙা গেলেও দ্বিতীয় সিন্দুক ভাঙতে সময় লাগে প্রায় চার ঘণ্টা। তার মধ্যে থেকে উদ্ধার হয় ২টি রুপোর মেডেল। এগুলির মধ্যে একটি মেডেল ১৯১৯ সালের এবং অপর মেডেলটি ১৯৬৫ সালের। 

দ্বিতীয় সিন্দুকটিতে পাওয়া গেছে অনেকগুলি খামও। মিলেছে একটি অভিযোগপত্র। ১৯৪৭ সালে এক ছাত্রী লিখেছিলেন এই অভিযোগপত্রটি। বন্ধ সিন্দুকটি থেকে মিলেছে আরও বেশকিছু নছি, সেগুলি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।