এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন পাঁচজন রোগীর মৃত্যু। তবে কী কারণে মারা গেলেন তাঁরা, সে বিষয় নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। ইতিমধ্যেই তাঁদের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। যদিও সেই করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট এখনও এসে পৌঁছয়নি। 

 আরও পড়ুন, পরাণমুখ সবুজ-নালি ঘাসে ঢাকা পড়েনি মানবিকতা, লকডাউনে এক অন্য কাহিনি লিখছে গলফগ্রিন.


সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার রাতে শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতাল থেকে মোট ১৫ জন করোনা আক্রান্ত বাঙ্গুর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। তাঁদেরও টালিগঞ্জের সরকারি হাসপাতালে শুরু হয়েছে চিকিৎসা। এদের মধ্য়ে প্রত্য়েকেরই করোনা উপসর্গ ছিল।   শ্বাসকষ্ট সহ একাধিক সমস্যা নিয়ে এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছিলেন ওই ৫ জন।  বৃহস্পতিবার রাতে বাঙ্গুর হাসপাতালে ভর্তি থাকাকালীনই মারা যান ওই ৫ জন। এই পরে শুরু হয় মৃত্য়ুর কারণ সংশয়। তবে যতক্ষন না পর্যন্ত তাদের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট এসে পৌছচ্ছে, ততক্ষন ধোঁয়াশা কাটবে না বলে চিকিৎসকদের অনুমান।

আরও পড়ুন, রাজ্য়ে করোনা হট স্পট কোনগুলো, সন্ধান দেবে 'সন্ধানে অ্যাপ'

সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার রাতেই শহরের এক নামজাদা বেসরকারি হাসপাতাল থেকে কমপক্ষে ১৫ জনকে টালিগঞ্জের এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।  তাঁরা প্রত্যেকেই করোনা আক্রান্ত। সূত্রের খবর, ওই ১৫ জনের মধ্যে একজন রাজ্যের শীর্ষস্তরের আমলার স্ত্রীও রয়েছেন। তাঁদেরও এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে।

 

 

এনআরএস-র আরও ৪৩ জন স্বাস্থ্য কর্মীর রিপোর্ট নেগেটিভ, স্বস্তিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

করোনার রোগী সন্দেহে বৃদ্ধকে বেধড়ক মার, স্যালাইনের চ্যানেল করা হাতে দড়ি পড়ালো মানিকতলাবাসী

করোনায় আক্রান্ত এবার কলকাতার ২ ফুটপাথবাসী, হোম কোয়ারেন্টাইনে উদ্ধারকারীরা