কমা তো দূর, রাজ্য়ে বেড়েই চলেছে করোনা ভয়। শুক্রবার রাজ্য়ে ফের একবার রেকর্ড গড়েছে করোনা। পশ্চিমবঙ্গে একদিনে মৃতের সংখ্য়ার নিরিখে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে এদিন। রাজ্য়ের করোনা বুলেটিন বলছে, একদিনে রাজ্যে করোনা নিয়ে মারা  গিয়েছেন ৬০ জন। যা সত্য়িই স্বাস্থ্য় দফতরের কাছে উদ্বেগের বিষয়।
 
এখানেই থেমে থাকছে না আশঙ্কার পরিবেশ। সংখ্য়তত্ত্ব বলছে,গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্য়ে করোনায় সংক্রামিত হয়েছেন তিন হাজারেরও বেশি। একদিনে পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্ত হয়েছেন ৩,০৩৫ জন। বৃহস্পতিবার এই সংখ্য়াটা  ছিল ২,৯৯৭ জন৷ সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১,১০,৩৫৮ জন৷

বাংলায় সংক্রমণে মৃতের তত্ত্ব বলছে,কদিন  ধরেই পঞ্চাশের  নীচে নামছিল না সংখ্যাটা। বৃহস্পতিবার এই সংখ্যাটা ছিল ৫৬ জন৷ বুধবার ৫৪ জন৷ সব মিলিয়ে রাজ্য়ে মৃতের সংখ্য়া দাঁড়াল ২,৩১৯ জন৷ অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬,৮৫০ জন৷ যা একদিনে বেড়েছে ৪০৩ জন৷ স্বাস্থ্য় দফতরের বুলেটিন  অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ২,৫৭২ জন৷ সব মিলিয়ে এই সংখ্য়াটা দাঁড়িয়েছে ৮১,১৮৯ জনে৷ যার ফলে  রাজ্য়ে  সুস্থ হয়ে ওঠার হার বেড়ে হয়েছে ৭৩.৫৭ শতাংশ৷  গত ২৪ ঘন্টায় টেস্ট হয়েছে ৩১ হাজার ছাড়াল টেস্টের সংখ্যা৷ একদিনে করোনা টেস্ট হয়েছে ৩১,৩১৭ টি৷

এদিকে যে ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে রয়েছেন কলকাতারই ২১ জন৷ এছাড়াও উত্তর ২৪ পরগনার ১৬ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনার ২ জন, হাওড়ার ৮ জন, হুগলি ২ জন৷ পশ্চিম বর্ধমান ১ জন৷ পূর্ব মেদিনীপুর ২ জন৷ পশ্চিম মেদিনীপুর ১ জন৷ মুর্শিদাবাদ ১ জন৷ মালদা ১ জন৷ দক্ষিণ দিনাজপুর ১ জন৷ জলপাইগুড়ি ১ জন৷ দার্জিলিং ২ জন৷ কোচবিহার ১ জন৷ এর আগে যে ৫৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল, তাদের মধ্যে কলকাতার ছিল ১৬ জন৷ উত্তর ২৪ পরগনারও ১২ জন৷ দক্ষিণ ২৪ পরগনার ২ জন৷ হাওড়া ১২ জন৷ 
হুগলির ৩ জন৷ 

এখানেই থেমে থাকেনি সংখ্যা, রাজ্য়ে বিভিন্ন জেলায় যেমন  পশ্চিম বর্ধমানে ১ জন, পূর্ব মেদিনীপুর ৩ জন, নদিয়ায় ২ জন, মালদা, উত্তর দিনাজপুর,জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং, আলিপুর দুয়ারে একজন করে সংক্রমণে মারা গিয়েছেন।