ফের শহরের নামী লেকে সাঁতার কাটতে নেমে জলে ডুবে মৃত্যু। এবার দক্ষিণ কলকাতার রবীন্দ্র সরোবরে। মঙ্গলবার সকালে দীর্ঘক্ষণ খোঁজাখুঁজির পর  ৭৮ বছরের এক বৃদ্ধের দেহ করে বিপর্যয় মোকাবিলা দল। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, লেকের জলে সাঁতার কাটতে কাটতে হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি এবং জলে ডুবে মারা যান। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: পার্কে তরুণীদের দেখে হস্তমৈথুন, বেহালায় হাতেনাতে ধরা পড়ল যুবক

মৃতের নাম সত্যব্রত সেন। গড়িয়াহাটের ডোভার টেরেস এলাকায় বাসিন্দা ছিলেন তিনি। কলকাতার অন্যতম নামী সাঁতার ক্লাব অ্যান্ডারসনের সদস্য ছিলেন ৭৮ বছরের ওই বৃদ্ধ। প্রতিদিন সকালেই দক্ষিণ কলকাতার রবীন্দ্র সরোবর লেকে সাঁতার কাটতে আসতেন তিনি। মৃতের গাড়ির চালক জানিয়েছেন, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ন'টা নাগাদ অ্যান্ডারসন ক্লাবে আসেন সত্যব্রত। কিন্তু বেলা গড়িয়ে গেলেও আর ক্লাব থেকে বেরোননি। গাড়ির চালক যখন ক্লাবের ভিতরে গিয়ে খোঁজ করতে শুরু করেন, তখন দেখা যায় চেঞ্জিং রুমে ওই বৃদ্ধের পোশাক পড়ে রয়েছে।  প্রথমে লেকে সত্যব্রত সেনের খোঁজ করতে শুরু করেন ক্লাব কর্তৃপক্ষই। খোঁজ না মেলায় শেষপর্যন্ত খবর দেওয়া হয় রবীন্দ্র সরোবর থানায়।  ঘটনাস্থলে আসে বিপর্যয় মোকাবিলা দলও।  দুপুরে তিনটে নাগাদ রবীন্দ্র সরোবর লেক থেকে উদ্ধার হয় সত্যব্রত সেনের দেহ।  শোকে ছায়া নেমেছে মৃতের পরিবারের।

আরও পড়ুন: গাড়িতে পেট্রল না থাকায় আসেনি অভিযুক্ত, যুক্তি শুনে ডিজি-কে তলব হাইকোর্টের

উল্লেখ্য, বছরের এই সময়ে কলকাতার সমস্ত ক্লাবেই সাঁতার বন্ধ থাকে। একমাত্র ব্যতিক্রম অ্যান্ডারসন ক্লাব। শীতের মুখে রবীন্দ্র সরোবর লেকে সাঁতারের অনুমতি ছিল ক্লাবের সদস্যদের। সত্যব্রত সেনের মৃত্যুর পর আপাতত সমস্ত ক্লাবে সাঁতার বন্ধ রাখা হয়েছে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। এর আগে উত্তর কলকাতা হেদুয়া ও মধ্য কলকাতা কলেজ স্কোয়ারের লেকে সাতারুর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।