এক ব্যক্তি যে তাঁদের অনুসরণ করছে, তা নজরে আগেই পড়েছিল দুই কলেজছাত্রীর।  শেষপর্যন্ত পার্কে হস্তমৈথুন করতে গিয়ে হাতনাতে ধরা পড়ে গেল সে। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে বেহালায়।

বেহালায় চৌরাস্তা এলাকার একটি মহিলা কলেজে পড়েন অভিযোগকারী দুই ছাত্রী।  রোজ ছুটির পর কলেজের ঠিক পিছনে একটি পার্কে বসে গল্প করেন তাঁরা। ওই দুই ছাত্রীর দাবি, গত দিন ধরে তাঁদের অনুসরণ করে পার্কে এসে হাজির হত এক ব্যক্তি। কিন্তু উত্যক্ত না করায় ঘটনাটিকে তেমন আমল দেননি তাঁরা। অভিযোগ, রবিবার বিকেলে যখন পার্কে বসে গল্প করছিলেন ওই দুই কলেজ পড়ুয়া, তখন পার্কের গেটে কাছে দাঁড়িয়ে ওই ব্যক্তি হস্তমৈথুন করছিল। ঘটনাটি নজরে এলেও তখন কিছু বলেননি। বরং অভিযুক্তকে হাতেনাতে ধরার পরিকল্পনা করেন ওই দুই কলেজ ছাত্রী। ঘটনাটি জানানো হয় এলাকার কয়েকজন যুবককেও। 

আরও পড়ুন: বাবার মৃতদেহ সৎকার না করে বিবাহ বন্ধনে পাত্র-পাত্রী

সোমবার বিকেলেও যথারীতি ওই পার্কে যান অভিযোগকারী দুই কলেজ ছাত্রী। এবং ফের একই ঘটনা ঘটে।  এবার টিকটক ভিডিও করার অছিলায় মোবাইলে ওই ব্যক্তির কুর্কীতির ভিডিও তোলেন তাঁরা। এদিকে ততক্ষণে ওই পার্কে চলে আসেন এলাকার কয়েকজন যুবকও। হাতনাতে ধরা পড়ে যায় অভিযুক্ত। খবর দেওয়া হয় বেহালা থানায়।  শেখ সেলিমউদ্দিন নামে বছর চল্লিশের ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন অভিযোগকারী দুই তরুণী।

আরও পড়ুন: গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টায় ১০ বছরের জেল, কড়া শাস্তি বালুরঘাটে

গত বছরের মাঝামাঝি চলন্ত এক তরুণীকে দেখে এক বৃদ্ধের হস্তমৈথুনের ঘটনার শোরগোল পড়ে গিয়েছিল কলকাতা।  বাসে যিনি হেনস্তার শিকার হয়েছিলেন, তিনি আবার ঘটনাটির ভিডিও করে কলকাতা পুলিশের ফেসবুক পেজে পোস্টও করে দিয়েছিলেন।  অভিযুক্তকে গ্রেফতারও করে পুলিশ। একই ঘটনাটি পুনরাবৃত্তি ঘটল বেহালায়।