করোনা-ডেঙ্গুর জোড়া সংক্রমণে এবার প্রাণ হারালেন  দক্ষিণ কলকাতার এক প্রৌঢ়। মৃত্যুর পরেই তাঁর করোনা এবং ডেঙ্গুর রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এই ঘটনা প্রকাশ্য়ে আসতেই আতঙ্ক ছড়িয়েছে শহরে। চিকিৎসকদের মতে, এমন ঘটনা এই প্রথমবার ঘটল।

আরও দেখুন, কলকাতার কোথায় কোথায় নতুন কনটেনমেন্ট জোন, দেখে নিন সেই ছবি


সূত্রের খবর, জুলাই মাসের শুরুর দিকে দক্ষিণ কলকাতার অশোকনগরের বাসিন্দা, ৬৪ বছরের প্রৌঢ় বেশ কিছুদিন ধরেই জ্বরে ভুগছিলেন। শ্বাসকষ্ট ছিল তাঁর। করোনার উপসর্গ প্রকট হওয়ায় তাঁকে এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালে ভর্তি করানোর জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছিল ৪ জুলাই। সেখানে তাঁর বিভিন্ন পরীক্ষার জন্য রক্তের ও লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে বাড়ি পাঠানো হয়। পরের দিন, ৫ জুলাই বাড়িতেই হঠাৎ তাঁর মৃত্যু হয়। তার পরে দেহ দীর্ঘ সময় বাড়িতেই ছিল, কারণ রিপোর্ট আসেনি করোনা পরীক্ষার। ৫ জুলাই হাসপাতালের তথ্য অনুযায়ী তাঁর রক্তের নমুনায় ডেঙ্গির সংক্রমণ ছিল বলে ধরা পড়ে। রিপোর্টে স্পষ্ট লেখা রয়েছে, ডেঙ্গি এনএস ওয়ান এলাইজা পদ্ধতিতে পরীক্ষার রিপোর্ট এসেছে পজিটিভ। এর পরেই মৃত্যুর পরের দিন অর্থাৎ৬  জুলাই তাঁর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট আসে, সেখানে দেখা যায় করোনা পজিটিভ অর্থাৎ কোভিড সংক্রমণ ছিল ওই ব্যক্তির দেহে।

আরও পড়ুন, বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টা থেকে সব কনটেনমেন্ট জোনে কড়া লকডাউন, জানুন প্রয়োজনীয় তথ্য়

অপরদিকে  ওই প্রৌঢ়ের দুটি রিপোর্ট পজিটিভ আসায় মৃত্যুর পরেই প্রশ্ন উঠেছে,।  করোনা না ডেঙ্গু ,  মৃত্যুর কারণ নিয়ে এখনও ধোয়াশা কাটেনি। এদিকে  প্রতিবছরই এই সময়ে ডেঙ্গির প্রকোপ শুরু হয় রাজ্যে।তাই বর্ষা আসার আগের করোনা আবহেই রাজ্য সরকার নিয়েছে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রনের ব্য়বস্থা।