বেহালার ইংরেজি মাধ্যম  স্কুলে প্রতারণা অভিযোগ উঠল। সূত্রের খবর, ভর্তি করার নাম নিয়ে  কয়েক লক্ষ টাকা তোলা হয়েছে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকদের কাছ থেকে। এ নিয়ে রীতিমত ক্ষোভ ফেটে পড়েন এবং অভিযুক্তকে পেয়ে বেধড়ক মারধর শুরু করেছেন অভিভাবকরা।  অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে পর্ণশ্রী থানায়। ইতিমধ্য়েই ঘটনার তদন্তে নেমেছে পর্ণশ্রী থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন, অনুপ্রবেশ রাজ্য়ের সমস্য়া, মানলেন সাহিত্য়িক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়

 বেহালার সৌরেন্দ্র ইংলিশ মিডিয়াম এইচএস স্কুলে লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে, স্কুলেরই দারোয়ানের বিরুদ্ধে। স্কুলে ভর্তি করার নামে কয়েক লক্ষ টাকা তোলার অভিযোগ। যে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী রা স্কুলে ভর্তি স্কুলে ভর্তি হওয়ার জন্য লটারিতে নাম ওঠেনি মূলত তাদের কাছ থেকেই তোলা হয়েছে এই বিশাল পরিমানে টাকা। অভিযুক্ত দারোয়ানের নাম পাপ্পু বলে জানিয়েছেন অভিভাবকরা।  ভালো নাম সঞ্চয়ন রায় । এছাড়া অভিভাবকদের বক্তব্য অনেকের কাছ থেকে স্কুলে, আবার কখনও বাড়িতে গিয়ে ওই অভিযুক্ত দারোয়ান টাকা নিয়েছে।  

 গত বছর ডিসেম্বর মাসে যখন লটারিতে ছাত্র-ছাত্রীদের নাম প্রকাশ করা হয়েছে,তখন বেশ কয়েক  জনের নাম ওঠেনি । তখন এই অভিযুক্ত দারোয়ান সব অবিভাবকদের কে ফোন করে নাম না ওঠা  অবিভাবকদের কাছ থেকে বিভিন্ন পরিমান টাকা নেয়। অভিযোগ, প্রায় ৬০-৭০ জন অবিভাবকদের কাছ থেকে প্রায় কয়েক লক্ষ্য টাকা নেয় অভিযুক্ত ওই ব্য়ক্তি।

আরও পড়ুন, পার্কসার্কাসে এটিএম কার্ডের ক্লোনিং চক্রের পর্দা ফাঁস, সতর্ক করল কলকাতা পুলিশ

 শনিবার সকালে, ওই অভিভাবকরা এসে দেখেন তাদের বাচ্চাদের নাম  বেহালার সৌরেন্দ্র ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের তালিকায় ওঠেনি। তারপরেই স্কুল চত্ত্বর জুড়ে উত্তেজনা শুরু হয় । স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন এই টাকা নেওয়ার বিষয় তারা কিছুই জানেন না। কারণ অভিযুক্ত পাপ্পু, স্কুলের বাইরে সিকিউরিটি গার্ড ছিল। স্কুলের প্রিন্সিপাল ঘরের চাবি সমস্ত ঘরের চাবি তার কাছেই থাকত। স্কুলের টিচার ইনচার্জ পৃথা প্রামানিকের এর বক্তব্য, তারা যখন ছুটির পরে স্কুল ছেড়ে চলে যেত তখন এই পাপ্পু বিশ্বাসযোগ্যতা গ্রহণ করবার জন্য স্কুলের ভিতর , এমনকি প্রিন্সিপাল রুমের ভিতর অভিভাবকদের কাছ থেকে টাকা নিতো। ইতিমধ্যেই স্কুলের তরফ থেকে পাপ্পুর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে পর্ণশ্রী থানায়। কী করে সবার চোখকে ফাঁকি দিয়ে অভিযুক্ত ব্য়ক্তি  লক্ষ্য টাকার প্রতারণা করল, তা খতিয়ে দেখতে তদন্তে নেমেছে পর্ণশ্রী থানার পুলিশ।