দুর্গাপূজার ভাসান পর্ব শেষ হতে না হতেই শুরু হয়ে গেল কালী পূজার প্রস্তুতি। খুঁটি পূজার মাধ্যমে কালী পুজোর প্রস্তুতি শুরু করে দিলো কলকাতার অন্যতম বড় কালী পুজো কমিটি গিরিশ পার্ক ফাইভ স্টার স্পোর্টিং ক্লাব। বৃহস্পতিবার এই ক্লাবের খুঁটি পূজো আয়োজন করা হয়েছিল। খুঁটি পূজা উপলক্ষে সেখানে ছিলেন ক্লাব কর্মকর্তা স্মিতা বক্সি, সঞ্জয় বক্সী এবং সৌম্য বক্সী। খুঁটি পূজা উপলক্ষে আয়োজন করা হয়েছিল হোম যজ্ঞের। খুঁটি পুজোর আগে হোম যজ্ঞ এর মধ্যে দিয়ে খুঁটি পুজো করে তারপর সেই খুঁটি মাটিতে পোঁতা হয়।

দুর্গাপুজোর মত কালীপুজোতেও থাকছে বিধি নিষেধ

দূর্গা পূজার মত কালী পুজোতেও একাধিক বিধিনিষেধ মেনে পুজোর আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন এই পুজো কমিটির অন্যতম কর্তা সৌম্য বক্সী। সৌম্য বক্সী জানিয়েছেন , সরকারি নির্দেশ মেনে মণ্ডপ তৈরি করা হচ্ছে অর্থাৎ খোলামেলা মন্ডপ হবে। দর্শনার্থীদের প্রবেশ এবং বাহিরের পথের ক্ষেত্র সরকারি নির্দেশ মেনে চলা হবে। 


পুজো আয়োজনে একাধিক কাটছাঁট

গিরিশ পার্ক ফাইভস্টার স্পোর্টিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৌম্য বক্সী জানিয়েছেন, তাদের কালী পুজোতে অন্নকূট উৎসব বড় করে আয়োজন করা হয়। প্রতিবছর প্রায় সাড়ে চার হাজার মানুষকে একসঙ্গে বসে খাওয়ানোর ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এ বছর সেই অনুষ্ঠানের বদলানো হচ্ছে। এক জায়গায় বসিয়ে খাওয়ানোর পরিবর্তে বাড়ি বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হবে তৈরি খাওয়ার। একইসঙ্গে প্রতিবছর আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। যেখানে উপস্থিত থাকেন টলিউডের বিখ্যাত শিল্পীরা। কিন্তু এবছর তা আয়োজন করা হবে না বলে জানিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে প্রতিমা নিরঞ্জনের বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার আয়োজন করা হবে না বলেও জানান তিনি। 

অন্যান্য কালীপুজো কমিটির বক্তব্য

কেবল গিরিশ পার্ক ফাইভস্টার স্পোর্টিং ক্লাব নয়, শহর কলকাতার অন্যান্য বড় কালীপুজো কমিটিগুলির বক্তব্য এবছর করোনা ভাইরাসের প্রকোপ থাকার কারণে একাধিক বিধিনিষেধ মানতে হচ্ছে, তাই পুজোতে বাড়তি আরম্ভর রাখা হবে না। পুজোতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান কিংবা পুজো শেষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা কার্যত বাতিল করছেন তারা। স্বাস্থ্য বিধি এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই আয়োজন করা হবে কালীপুজোর।