ভিডিওয়ে দেখা যাচ্ছে শিশুদের দলের মধ্যে জয় শ্রীরাম ধ্বনি তুলছেন বাবুল। শিশুদেরকেও তিনি বলছেন, জোর সে বোলো 'জয় শ্রীরাম'। সেই বাচ্চারাও সমবেত কন্ঠে 'জয় শ্রীরাম' ধ্বনি তুলছেন। এই ভিডিওয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের টুইটার অ্যাকাউন্টকে ট্যাগ করেছেন আসানসোল থেরে বিজয়ী প্রার্থী। 

 

 

সম্প্রতি অর্জুন সিং মমতাকে জয় শ্রীরাম লেখা কার্ড পাঠানোর হুমকি দিয়েছেন। অর্জুনকে পাল্টা জবাব দিতে তাঁকে হোয়াটসঅ্যাপা মেসেজ করার পথ বেছে নিলেন তৃণমূল সমর্থকরা। ফেসবুকে তৃণমূল সমর্থকদের একটি পেজে অর্জুন সিংহের ফোন নম্বর দিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেখানে আবেদন করা বলা হয়েছে, ব্যারাকপুরের সাংসদকে হোয়াটসঅ্যাপ করে "জয় হিন্দ, জয় বাংলা এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়" জিন্দাবাদ লিখে পাঠানোর জন্য।  

রবিবার জয় শ্রীরাম প্রসঙ্গে মমতা বড় একটি পোস্ট দেন ফেসবুকে। তিনি লেখেন, "আমি সাধারণ মানুষকে জনাতে চাই, ঘৃণা ছড়িয়ে দিতে চাইছে বিজেপি। বিভ্রান্তি তৈরির জন্যে ভুঁয়ো খবর তৈরি করছে। সত্যকে ধামাচাপা দিতে চাইছে তাঁরা। জয় সিয়া রাম, জয় রামজিকি, রাম নাম সত্য হ্যায়"- ইত্যাদি স্লোগানের ধর্মীয় ও সামাজিক সংজ্ঞা আছে। আমরা এই আবেগকে সম্মান করি। কিন্তু বি. জে.পি এই " জয় সিয়া রাম" ধর্মীয় স্লোগানকে রাজনৈতিক স্লোগানে পরিণত করেছে এবং এর ফলে রাজনীতির সঙ্গে ধর্মকে মিশিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আমরা কখনোই আরএসএস এর এই ধর্মীয় স্লোগানকে বলপূর্বক রাজনৈতিক স্লোগান এ পরিণত করাকে মানতে পারিনা। বাংলা কখনো এ মেনে নিতে পারেনি,পারবে না। এই বিদ্বেষপূর্ণ মতাদর্শকে গুন্ডামি এবং হিংসার মাধ্যমে চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। আমাদের সকলের এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা উচিত।"