বাড়ি থেকে গাড়ি চেপে এলেন নাকতলার মণ্ডপে। দরজা খুলে নামার পরই চমক। একেবারে স্টেডিয়ামের বাইরে বল পাঠালেন  শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। পরনে ব্লক প্রিন্টের ধুতি, লাল সিল্কের পাঞ্জাবি। সঙ্গে মানানসই উত্তরীয়। সব মিলিয়ে একেবারে অন্য রূপে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী। এদিন খোশ মেজাজে ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। অকপটে বললেন,  'জীবনে তিনবার ধুতি পরেছি। একবার বিয়েতে, দ্বিতীয়বার মন্ত্রী হিসেবে প্রথম শপথ নেওয়ার দিন আর তৃতীয়বার আজ।'

তবে নিজে তৃণমূল হয়ে পাঞ্জাবির রঙ লাল কেন ? এই প্রশ্নের উত্তরও দিলেন সাবলীল ভঙ্গিতে। বললেন, লাল পাঞ্জাবি তাতে কী? সিঁদুরের রং লাল, রক্তের রংও তো লাল। লাল সিঁদুর, লাল আলতা যদি পরা যায়, লাল পাঞ্জাবি নয় কেন। জামা-কাপড়ের রঙে কিছু এসে যায় না। লাল পাঞ্জাবিতে আমার আদর্শের পরিবর্তন হবে,তার কোনও চান্স নেই।'
ওদিকে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ধুতি-পাঞ্জাবিতে সেজেগুজে নাকতলার মণ্ডপ আলো করে বসে আছেন শুনে একডালিয়ার কর্তা তথা রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের টিপ্পনি, 'এসব জমিদারিভাব দেখানোর ব্যাপার আমাদের নেই। এই ক'দিন মা দুর্গাই কেন্দ্রবিন্দুতে থাকেন, মা সাজেন। আমরা মা'কে সাজাই। আমি সেজেগুজে বসে থাকবো কেন? লোক তো একদিন মা'কে দেখবেন, আমাকে নয়।