টিক টক ভিডিও ঘটাল পথ দুর্ঘটনা।  শহরের উড়ালপুলের উপর দিয়ে  বাইক চালাতে চালাতে  টিক টক ভিডিও করতে গিয়ে কাল হল হাল ফ্য়াশনের দুই যুবকের। বাইক এবং ট্য়াক্সির মুখোমুখি সংঘর্ষে গুরুতর জখম হল ওই সঞ্জীব সাউ এবং সুরজিৎ হালদার নামের ওই  দুই যুবক। ঘটনার খবর পেয়েই আহত যুবকদের দ্রুত উদ্ধার করে পুলিশ। মহেশতলা থানার পুলিশ আহত বাইক আরোহীকে বজবজ ইএসআই হাসপাতালে ভর্তি করেছে।  

সূত্রের খবর, দুই বাইক আরোহীই বেহালার ক্যানেল রোড এর বাসিন্দা। তারা মহেশতলায় এক বন্ধুর বাড়িতে এসেছিল। প্রত্যক্ষদর্শী ট্যাংকার চালক যেমনটা জানালেন দুই বাইক আরোহী টিক টক ভিডিও করতে করতে যাচ্ছিল ব্রিজের উপর দিয়ে হঠাৎ বাইকের সামনে চলে আসে একটি ট্যাক্সি। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাইকটি ধাক্কা মারে ট্যাক্সির মুখে। ঘটনাস্থলেই বছর সাতাশের বাইক চালক সঞ্জীব সাউ বাইক থেকে পড়ে মাথা ফেটে যায়। উল্টোদিকে ট্যাক্সির চাকাও পাঞ্চার হয়ে যায়।বাইক আরোহী দুজনের কারোরই মাথায় কোনো রকম হেলমেট ছিল না। বাইক চালকের মাথা ফেটে গেলেও পেছনে  বসে থাকা সুরজিৎ হালদার, তিনি সুস্থই আছেন। মহেশতলা থানার পুলিশ আহত বাইক আরোহীকে বজবজ ইএসআই হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছে। 


রাজ্য সরকারের এত প্রচার 'সেভ লাইফ সেভ ড্রাইভ' এর জন্য মানুষ যে এখন সচেতনতার অভাব। তার জ্বলন্ত প্রমাণ এই দুর্ঘটনা। মোবাইল ফোন কানে নিয়ে গাড়ি চালানো বা রাস্তা পার হওয়া নিষেধাজ্ঞা অনেকদিনই হল জারি হয়েছে রাজ্য়ে। তার উপর আবার এই টিকটক ভিডিও অন্য়তম প্রাণঘাতক বলে প্রমাণিত হল। এই কারণেই আগে থেকে পুলিশ প্রশাসন সর্তকতা এবং কিছু নিয়ম মেনে চলতে বলেছিল বারবার। তার মধ্য়ে অন্য়তম হেলমেট না পড়ে, বাইক চালানো কিংবা সিট বেল্ট না পরে গাড়ি চালানো। আর সেই  ফাঁদেই পা দিল ওই দুই যুবক।