রাজনীতির রঙ্গমঞ্চে তাঁর ঝাঁঝালো বক্তৃতা ধরাশায়ী করে বিপক্ষকে। এহেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়র মুখ থেকে বেরোল সুরেলা গান। একেবারে মাইক ধরে 'সোলো সিঙ্গার'। হতবাক করা এই ভিডিও সামনে আসতেই দেদার শেয়ার শুরু নেট দুনিয়ায়।

কোনও রাজনৈতিক মঞ্চ নয়। সব্যসাচী আয়োজিত গণেশ পুজো উপলক্ষে তিনি হাজির হয়েছিলেন মঞ্চে। সঞ্চালিকা গায়িকার হাতে তখন মাইক। কিছুক্ষণের মধ্য়ে সবার অনুরোধে নিজেই সেই মাইক তুলে নিলেন বিজেপির হেভিওয়েট নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। একেবারে প্রফেশনাল গায়কের আদলে বললেন,সাউন্ড -ফুটে উঠল ষাটের দশকের গান 'চদভি কা চাঁদ হো, ইয়া আফতাব হো...।'
'পলিটিশিয়ান সিঙ্গার' নিজেই জানালেন, বর্তমান প্রজন্ম হয়তো এই গানের সঙ্গে পরিচিত নয়। কলেজে থাকাকালীন এই গান শুনতে খুব ভালোবাসতেন তিনি। বর্তমানের গানের সঙ্গে ততটা পরিচিত নন । তবে পুরোনো দিনের গান এখনও শোনেন। কখনও সখনও গুনগুনও করেন। মূলত, সব্যসাচী দত্ত ও তাঁর স্ত্রীকে এই গান উৎসর্গ করছেন তিনি। শেষে কৈলাসের অনুরোধে মাইক নিয়ে গলা মেলালেন সব্য়সাচীও। দুই নেতার এই সুরেলা মেলবন্ধন দেখে হতবাক হলেন সবাই। 

এদিকে,সব্যসাচীর লাগাতার এই বিজেপি সান্নিধ্য দেখে ভ্রু কুচকেছেন তৃণমূলের নেতারা। দলে থেকে এভাবে বিজেপির সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়ানো নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। কিন্তু আপাতত সেসবে হেলদোল নেই সব্যসাচীর। তাঁর গলায়ও একই সুর, 'চদভি কা চাঁদ হো, ইয়া.....।'