রবীন্দ্রভারতী-বার্লো গার্লসের পর এবার রবীন্দ্রনাথের কবিতা বিকৃত করার অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। শহরের বেশকিছু জায়গায় পড়ে গিয়েছে এই পোস্টার। যা নিয়ে শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক। 

এবার বিজেপির পোস্টার বিতর্ক খাস কলকাতায়।  নেটিজেনদের দাবি, গেরুয়া শিবিরের ওই পোস্টারটিতেও বিকৃত করা হয়েছে রবীন্দ্রনাথের কবিতা। অবিলম্বে এর জন্য শাস্তি পাওয়া উচিত রাজ্য় বিজেপির নেতাদের। জানা গিয়েছে,শহরের বিভিন্ন প্রান্তে গেরুয়া শিবির নরেন্দ্র মোদির প্রচারের জন্য এই পোস্টার লাগিয়েছে। যাতে লেখা আছে, চিত্ত যেথা ভয়শূন্য, উচ্চ যেথা শির, দুনিয়া সঙ্গে আছে নরেন্দ্র মোদীর। গেরুয়া শিবিরের এই পোস্টার নিয়ে সমালোচনা শুরু করেছে বিরোধীরা। যদিও এ নিয়ে এখনও মুখ খোলেনি রাজ্য় বিজেপি।

রবি ঠাকুরের লেখনী বলছে,চিত্ত যেথা ভয়শূন্য, উচ্চ যেথা শির/ জ্ঞান যেথা মুক্ত, যেথা গৃহের প্রাচীর/ আপন প্রাঙ্গণতলে দিবসশর্বরী/ বসুধারে রাখে নাই খণ্ড ক্ষুদ্র করি...কবিগুরুর এই লাইনগুলিই বিকৃত করা হয়েছে। রাজ্য় রাজনীতির সম্প্রতিক চিত্র বলছে,  কয়েকদিন আগেও বঙ্কিমচন্দ্র নিয়ে মেতেছিল  বিজেপি। সিএএ-র সমর্থনে হাতিয়ার করা হয়েছিল ঋত্বিক ঘটকের ছবি। যা ঘিরে আগেই বিতর্ক তৈরি হয়েছে। 

সম্প্রতি রবি ঠাকুরের 'চাঁদ উঠেছিল গগনে' গানটি বিকৃত করে গেয়েছে চার ছাত্রী। প্রতিটি লাইনে একাধিক অকথ্য, অশালীন শব্দ! রবীন্দ্রভারতীকাণ্ডের ছায়া এবার মালদহেও।  সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও ভাইরাল হতেই অবশ্য ক্ষমা চেয়েছে ওই চারজন ছাত্রীর মধ্যে দু'জন। 

এর আগে কলকাতায় রবীন্দ্রভারতীর বিশ্ববিদ্যালয়ে বসন্তোৎসবে তাঁর গাওয়া গানের তালেই নেচেছে একদল তরুণ-তরুণী। তাঁদের বুকে-পিঠে লেখা ছিল গালিগালাজও! সেই ছবি ও ভিডিও ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়, নিন্দার ঝড় উঠেছে। ঘটনার দায় স্বীকার করে পদত্যাগ করেছেন রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সব্যসাচী বসু রায়চৌধুরী। এবার সেই পথেই হাঁটল স্কুলপড়ুয়ারা! আরও লজ্জাজনক ঘটনা ঘটল মালদহে।