টালা সেতু ভেঙে ফেলারই সুপারিশ করে রিপোর্ট জমা পড়ল মুখ্যসচিবের কাছে। এর আগে একই সুপারিশ করেছিল রাইটস। এবার একই সুপারিশ করলেন রাজ্য সরকারের নিযুক্ত ব্রিজ বিশেষজ্ঞ ভিকে রায়না। 

মুখ্য সচিবের কাছে যে রিপোর্ট জমা পড়েছে, তাতে টালা সেতুর সাতটি জায়গা বিপজ্জনক বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। রেল লাইনের উপরের অংশই সবথেকে বিপজ্জনক বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। এর পরে রাজ্য সরকার আর টালা সেতুকে রেখে দেওয়ার ঝুঁকি নেয় কি না, সেটাই এখন দেখার। 

দুর্গা পুজোর আগেই টালা সেতুতে ত্রুটি ধরা পড়ে। সেতুর অবস্থা বিপজ্জনক বলে জানিয়েছিল রেলের সমীক্ষক সংস্থা রাইটস। এর পরেই টালা সেতুর উপর দিয়ে বাস এবং অন্যান্য ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছিল রাজ্য সরকার। রাইটসও সেতু ভাঙার পক্ষেই রায় দিয়েছিল। কিন্তু বিকল্প সেতু তৈরি করার ঝক্কির কথা মাথায় রেখেই ব্রিজ বিশেষজ্ঞকে দিয়ে সেতু আরও একবার পরীক্ষা করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজ্য সরকার। 

গত বছরের শেষ দিকে আচমকাই ভেঙে পড়েছিল দক্ষিণের মাঝেরহাট সেতু। সেই সেতু নতুন করে তৈরির কাজ এখনও শেষ করা যায়নি। বিকল্প পথ তৈরি করে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করা হলেও বেহালা এবং দক্ষিণ কলকাতার মধ্যে যাতায়াত করতে গিয়ে যানজটে নাকাল হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এবার উত্তর কলকাতার গুরুত্বপূর্ণ টালা সেতুও যদি ভেঙে ফেলতে হয়, তাহলে একই ধরনের পরিস্থিতি শহরের এই অংশেও তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।