সামনেই গঙ্গাসাগর মেলা। মাঝেরহাটে দ্রুত সেতুর তৈরির কাজ শেষ করার আর্জি জানিয়ে রেলমন্ত্রীর পীষূষ গোয়েলকে চিঠি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রেলমন্ত্রীকে ব্যক্তিগতভাবে উদ্যোগ নেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে মাঝেরহাটে ব্রিজ তৈরির কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কাজ এখনও শেষ হয়নি। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, রেললাইনে উপরের অংশে নির্মাণের জন্য ছাড়পত্র দেয়নি রেল। তাই ব্রিজ তৈরির কাজ আটকে রয়েছে।

আরও পড়ুন: টালা সেতুর বাসিন্দাদের হাল কি, রাজ্যের কাছে হলফনামা চাইল হাইকোর্ট

এক বছর পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু এখনও মাঝেরহাটে নতুন সেতুর কাজ আর শেষ হল না।  ঘুরপথে চলছে যানবাহন। সামনেই আবার গঙ্গাসাগর মেলা। প্রতিবছর ডায়মন্ড হারবার রোড ধরে সাগরদ্বীপে যান পূর্ণ্যার্থীরা। মাঝেরহাট ব্রিজ তৈরির কাজ যদি দ্রুত শেষ করা না যায়, সেক্ষেত্রে সমস্যায় পড়বেন পূর্ণ্যার্থীরা।  রেলমন্ত্রী পীষূষ গোয়েলকে চিঠি লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

২০১৮ সালের ৪ নভেম্বর।  বিকেল বেলায় আচমকাই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে দক্ষিণ শহরতলির অন্যতম ব্য়স্ত সেতু মাঝেরহাটে ব্রিজের একাংশ। ব্রিজের নিচে চাপা পড়ে মারা যান একজন। মেরামতি নয়, বরং মাঝেরহাটে ব্রিজ পুরোপুরি ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য সরকার।  কথা ছিল, এক বছরের মধ্যে মাঝেরহাটে নতুন ব্রিজ তৈরির কাজ শেষ করে ফেলবে পূর্ত দপ্তর। গত বছরের নভেম্বর থেকে ব্রিজ ভাঙার কাজও শুরু হয়ে যায়।  কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ে মাঝেরহাটে নয়া সেতু তৈরির কাজ শেষ করা গেল না কেন?  জানা গিয়েছে, মাঝেরহাটে রেললাইনে উপর নির্মাণের জন্য রেলের অনুমতি প্রয়োজন। রেলমন্ত্রকের টালবাহানার কারণে ব্রিজের ভবিষ্যৎ এখন বিশ বাঁও জলে।  গঙ্গাসাগর মেলার আগে মাঝেরহাটে সেতু তৈরির কাজ নিয়ে ফের নড়চড়ে বসল রাজ্য সরকার। রেলমন্ত্রীর পীষূষ গোয়েলকে চিঠি লিখলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।