বিধান ভবনের সামনে রাহুল গান্ধির পোস্টার ছেঁড়ার প্রতিবাদে পথে নামল যুব কংগ্রেস। এদিন বিজেপির হামলার  প্রতিবাদে রাজ ভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখায় কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা। 

প্রদেশ কংগ্রেস ভবনে বিজেপির যুব মোর্চার হামলার প্রতিবাদে সরব হলেন পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেসের যুবরা। আজ রাজ ভবনের গেটে বিক্ষোভ দেখায় যুবর সদস্যরা । যুব কংগ্রেসের দাবি, বিজেপির গুন্ডা বাহিনী তাদের সদর দফতরে হামলা চালিয়েছে অথচ পুলিশ এখনও কাউকে গ্রেফতার করেনি। সেই কারণে রাজ্য়পাল ও প্রশাসনের নজরে আসতেই তাঁদের এই বিক্ষোভ। অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার করা না হলে আরও বড় আন্দোলনের হুমকি দেয় কংগ্রেস।

কদিন আগেই রাফাল চুক্তি সুপ্রিম কোর্টে পুনর্বিবেচনার রায় খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত। বিজেপি নেত্রী মীনাক্ষি লেখির আবেদনের ভিত্তিতে সুপ্রিম কোর্ট বলে, কোনও বক্তব্য রাখার আগে রাহুল গান্ধির উচিত আরও সতর্ক হওয়া।  লোকসভা নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আনে কংগ্রেস। কংগ্রেসের তৎকালীন সভাপতি রাহুল গান্ধি সুপ্রিম কোর্টকে কোট করে চৌকিদার চোর হ্যায় স্লোগান তোলেন। যা নিয়ে আপত্তি তোলে বিজেপি। বিজেপির  তরফে বলা হয়, রাফাল যুদ্ধ বিমান চুক্তি নিয়ে কখনোই মোদীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির কথা বলেনি সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালতকে সামনে রেখে নিজের মনের কথা বলেছেন রাহুল। যার জন্য শীর্ষ আদালতের কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত তাঁর। সম্প্রতি  সেই মামলায় রাহুল গান্ধিকে আরও সতর্ক হয়ে কথা বলতে বলে সুপ্রিম কোর্ট। এরপরই দেশবাসীর কাছে রাহুলকে ক্ষমা চাইতে বলে বিজেপি। 

বিজেপি নেতা রবি শংকর প্রসাদ বলেন, কংগ্রেস বরাবরই দেশের নিরাপত্তা নিয়ে সমঝোতা করেছে। রাহুল গান্ধিও রাফাল চুক্তি নিয়ে মোদীর নামে মিথ্য়ে কথা বলেছেন। দেশবাসী সেই কারণে লোকসভা ভোটে রাহুলকে উচিত শিক্ষা দিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রাহুলকে নিয়ে এই রায়ের পরই কলকাতার বিধান ভবনে ধিক্কার মিছিল করে বিজেপি। প্রদেশ কংগ্রেস ভবনের সামনে রাহুল গান্ধির পোস্টারে কালি মাখায় তাঁরা। পরে ছিঁড়ে ফেলা হয় সেই পোস্টার। যার বিরুদ্ধে এদিন রাজ ভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখায় কংগ্রেস।