পুজো মিটতেই নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করে দিল বাম কংগ্রেস। সেই প্রস্তুতির অঙ্গ হিসাবে মঙ্গলবার ক্রান্তি প্রেসে বৈঠকে বসেছিলেন বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্র, অধীর চৌধুরী, আব্দুল মান্নানরা। আগামী নির্বাচনে বাম- কংগ্রেস এক সঙ্গে লড়াই করবে। কংগ্রেস নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এই কথা ঘোষনা করলেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। 

আরও পড়ুন: 'মুখ্য়মন্ত্রী নিজের ভাইপো ছাড়া কারও জনপ্রিয়তা সহ্য করেন না', শুভেন্দু প্রসঙ্গে মমতা কটাক্ষ মান্নানের

দীর্ঘ এক ঘণ্টার বৈঠক শেষ করে বিমান বসু জানান, অনেকে মনে করে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে। বিজেপি গোটা দেশের ক্ষেত্রে জনবিরোধী দল। মানুষের মানুষে বিরোধ করে এই রাজনৈতিক দল। বিজেপি আমাদের মূল শত্রু। তবে যারা বিজেপিকে বাংলায় নিয়ে এসেছে, তাদের বিরুদ্ধেও আমাদের লড়াই করতে হবে। তারা বিজেপির এর সঙ্গে বোঝাপড়া করে চলছে বলেও এদিন অভিযোগ করেন বিমান বসু। সঙ্গে তিনি বলেন, আগামী দিনে নির্বাচনকে ঘিরে বিজেপির সঙ্গে তৃণমূল কোন আলোচনা করবে কিনা সেটা বলা যায় না। কয়েকদিন আগেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের ছেলে জয় শাহের সঙ্গে কথা বলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সেই কথা এদিন টেনে আনেন বিমান বসু। তিনি প্রশ্ন তোলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অমিত শাহের ছেলের সঙ্গে কথা বলেছেন, তার কারণ কি কোন গোপন এজেন্ডা ? 
আরও পড়ুন: নির্বাচনের আগেই কি জেলে যাবেন মুকুল রায়, ভোটযুদ্ধে জিততে কী কৌশল নিচ্ছে বিজেপি

বিরোধী রাজনৈতিক দলকে আক্রমণ করার সঙ্গে সঙ্গে নিজদের জোট প্রসঙ্গে বিমান বসু বলেন, 'আমরা আসন সমঝোতা করে লড়াই করবো। আগামী দিনের আন্দোলন নিয়ে আমাদের কথা হয়েছে।' আগামী ২৬ তারিখ হরতাল আছে, তাই নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ২৩ নভেম্বর কলকাতায় যৌথ ভাবে বড় মিছিল হবে বলেও এদিন জানান বিমান বসু। এদিনের বৈঠক প্রসঙ্গে অধীর বলেন, জোট ক্রমশ বাংলায় একটা শক্তিশালী ফোর্সে পরিণত হচ্ছে। সেই কারণে জোট ভাঙার কথা বলা হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায়। যদিও একাধিক কংগ্রেস বিধায়কের দল ছাড়া প্রসঙ্গে অস্বস্থি এড়িয়ে অধীর চৌধুরী বলেন, কোন নেতা দল থেকে বেরিয়ে যেতে পারে এতে আমাদের দলের মানচিত্রে কোন অসুবিধা হবে না।  অন্যদিকে, বিমান বসু মত যৌথ আন্দোলনে সায় দিয়েছেন অধীর চৌধুরী। সাংবাদিক সম্মেলনে অধীর চৌধুরী বলেন, '