খিদিরপুরে দুর্ঘটনায় কবলে পড়ল যাত্রীবোঝাই চক্ররেল। বন্দর এলাকায় চলন্ত ট্রেনের উপর হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল কলকাতা পুলিশের একটি ক্রেন। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত দু'জন যাত্রীর আহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে।  আহতেরা ভর্তি হাসপাতালে। কীভাবে দুর্ঘটনা ঘটল? তদন্তে কলকাতা পুলিশ।

ঘড়িতে তখন সন্ধে পৌনে ছয়টা। মাঝেরহাট থেকে হাবড়া দিকে যাচ্ছিল একটি চক্ররেল। অফিসটাইমে ট্রেনে ভিড়ও ছিল যথেষ্ট। দুর্ঘটনা ঘটে খিদিরপুর ও প্রিন্সেপঘাটে মাঝে। খিদিরপুরের বন্দর এলাকায় সুইং ব্রিজের পাশে একটি আলাদা সেতু দিয়ে চক্ররেলও চলাচলও করে। যাত্রীরা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার যখন মাঝেরহাট থেকে হাবড়াগামী চক্ররেলটি ওই সেতুর উপর দিয়ে যাচ্ছিল, তখন ট্রেনে শেষ দুটি কামরার উপর হুড়মুড়িয়ে ভেঙে কলকাতা পুলিশের একটি ক্রেন। ঘটনার গুরুতর আহত হন চক্ররেলের দুই যাত্রী। তড়িঘড়ি তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভরতি করে পুলিশ। দুর্ঘটনার কারণে এখন বন্ধ চক্ররেল পরিষেবা বন্ধ। মাঝেরহাট থেকে হাবড়াগামী চক্ররেলটিকেও বাতিল করা হয়েছে। 

কিন্তু চক্ররেলের লাইনে পাশে ক্রেন এল কোথা থেকে? দুর্ঘটনাই বা ঘটল কী করে? খিদিরপুরের সুইং ব্রিজটি বন্দর এলাকা। ফলে তার পাশে চক্ররেলের সেতুটি বন্দর এলাকার উপর দিয়ে গিয়েছে। ফলে সেই সেতুর পাশে কলকাতা পুলিশ-সহ বিভিন্ন সংস্থার ক্রেন দাঁড়িয়ে থাকে। তবে দুর্ঘটনার কারণটি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।  প্রসঙ্গত, লোকাল ট্রেনের মতো চক্ররেলেও যাতায়াত করেন অনেকেই। সকাল ও বিকেলে অফিসটাইমে চক্ররেলে ভিড়ও হয় যথেষ্ট।