কলসেন্টারের আড়ালে বিদেশিদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে ১০ জনকে গ্রেফতার করল কলকাতার বেনিয়াপুকুর থানার পুলিশ। মূলত মার্কিন নাগরিকরাই এই প্রতারণাচক্রের শিকার। শহর কলকাতায় ভুয়ো কলসেন্টার খুলে, প্রতারণার ঘটনা আগেও অনেকবার হয়েছে। কিন্তু মার্কিন নাগিরকদের টার্গেট করে প্রতারণা কলকাতায় এই প্রথম শোনা গেল।

পুলিশি সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতেরা হল আফাক খুরশিদ, মহম্মদ কালাম, মহম্মদ ইমরান, শামস তনভির, মহম্মদ রিয়াজউদ্দিন, মহম্মদ শোয়েব, আলি হামজা, মহম্মদ মিরাজ, শেখ ইরফান ও শানে জাফর। এরা প্রত্যেকেই কলকাতার বাসিন্দা। বাড়ি মফিদুল ইসলাম লেন, দিলখুশা স্ট্রিট, আবদুল লতিফ স্ট্রিট, শরিফ লেন, তপসিয়া রোড ও বেডফোর্ড লেনে। ডিসি (এসইডি) দেবস্মিতা দাস বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন, ধৃতদের কাছ থেকে ৪টি ল্যাপটপ, এটিএম কার্ড, ১১টি মোবাইল বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। 

পুলিশ সূত্রের খবর, বেনিয়াপুকুরের নাসিরুদ্দিন রোডে একটি বাড়ির একতলা ভাড়া নিয়ে কলসেন্টার চালানো হচ্ছিল। প্রতারণা  চক্রের লোকজন নিজেদের একটি বহুজাতিক তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার কর্মী বলে পরিচয় দিয়ে, মার্কিন নাগরিকদের ফোন করত। তারপর  ফোনে বলা হত, পুরনো অপারেটিং সিস্টেমে তাঁদের কম্পিউটার বা ল্যাপটপ আর চলবে না। সংস্থাটি আপডেটেড অপারেটিং সিস্টেম কম্পিউটারে আপলোড করে দেবে। এ জন্য ভারতীয় মুদ্রায় দুইশো করে টাকা দিতে হবে। কম্পিউটারে শুধু একটি সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে হবে যার ফলে  দূর থেকেই নিয়ন্ত্রনের মাধ্য়মে ওই মার্কিন নাগরিকরা নতুন অপারেটিং সিস্টেম চালু করতে পারেন। কিন্তু অবশেষে প্রতারণার পর্দা ফাঁস করল  কলকাতার বেনিয়াপুকুর থানার পুলিশ। ধৃতদের আদালতে হাজির করার পর, ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।