করোনা আতঙ্কে এবার আপনও পর হতে শুরু করল। মরার পরও দেহ নিতে এগিয়ে এল না পরিবার। ফলে মেডিক্য়াল কলেজ হাসপাতালে সোমবার রাত ৮টায় মৃত্যু হলেও পড়েই থেকেছে দেহ। পরবর্তীকালে যা ঘিরে আতঙ্ক ছড়িয়েছে খোদ হাসপাতালেই।

জানা গিয়েছে, করোনা আক্রান্তদের জন্য নির্দিষ্ট সুপার স্পেশালিটি ব্লকের আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন ওই মহিলা। সোমবার রাত ৮টা নাগাদ তাঁর মৃত্যু হয়। হাসপাতালের তরফে কিছু না বলা হলে পরিবার জানিয়েছে, বৃদ্ধা করোনা আক্রান্ত কিনা তা স্পষ্ট করা হচ্ছে না। এখনও  মৃতার লালারসের নমুনা সংগ্রহ করেননি মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ। যা ঘিরে তাদের মনে আরও সন্দেহ দানা বেঁধেছে।

তবে এই নিয়ে কোনও মন্তব্য় করেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। যদি  সূত্রের খবর, বছর ৬২-র ওই মহিলা কদিন ধরেই চার্নক হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। আদতে উত্তর ২৪ পরগনার বাসিন্দা তিনি। করোনা সংক্রমণের জেরে সম্প্রতি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ওই হাসপাতাল। রবিবার রাতে  বন্ধ হওয়ার আগেই ওই অসুস্থ মহিলাকে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে মহিলাদের মেডিসিন ওয়ার্ডে আনা হয়। তার আগে কিছু সময়ের জন্য জরুরি বিভাগেও রাখা হয়েছিল তাঁকে।

রাজ্য়ের করোনা আক্রান্তের সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান বলছে,সোমবার সন্ধে পর্যন্ত এই সংখ্যাটা ছিল ১১০। রাজ্য়ে করোনায় মৃতের সংখ্য়া ৭। যদিও কেন্দ্রের গতরাতের হিসেব বলছে রাজ্য়ের করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫২ জন। যদিও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য় মন্ত্রক বলছে, ইতিমধ্য়েই করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ২৬ জন।