চিকিৎসায় উন্নতি হয়েছে বুদ্ধদেবের। আগের থেকে শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। সেরে উঠেছেন  রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। তাই বুধবারই হাসপাতাল থেকে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হবে। সূত্রের খবর, তবে পরবর্তী এক সপ্তাহ প্রাক্তণ মুখ্যমন্ত্রীকে নিভৃতবাসে থাকতে হবে। বাড়িতেই চিকিৎসাধীন থাকবেন তিনি।

আরও পড়ুন, 'ভ্যাকসিন অন হুইলস', করোনা মোকাবিলায় একাধিক নয়া উদ্য়োগ কলকাতা পুরসভার  

 

 


 হাসপাতালের বুলেটিন অনুযায়ী,বুদ্ধদেবের শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা এখন ৯৬ শতাংশ। তাই তাঁর অক্সিজেন অনেকটাই কম লাগছে। ১ লিটার থেকে ২ লিটার অক্সিজেনের দরকার পড়ছে তাঁর। হাসপাতাল সূত্রে খবর এখনও তাঁকে বাইপ্যাপ সাপোর্ট মাঝে মধ্যে দিতে হচ্ছে। তবে আগের থেকে ভালো রয়েছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী।  রক্তচাপ স্বাভাবিক। সচেতনভাবেই কথাও বলছেন। আগের থেকে কমেছে শুকনো কাশির সমস্যাও। হৃদস্পন্দনের গতি প্রতি মিনিটে ৬৪। স্বাভাবিকভাবেই খাওয়া-দাওয়া করছেন। ইতিমধ্যেই তাঁর রেমডেসিভিরের কোর্সও শেষ হয়েছে। যদিও এখনও স্টেরয়েড দেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন, Live Covid- কোভিডে সংক্রমণ-মৃত্যু দুইই কমল রাজ্যে, কলকাতায় ব্ল্যাক ফাংগাসে বলি আরও ১ 

 

 

 প্রসঙ্গত করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য প্রথম অবস্থায় হোম আইসোলেশনেই চিকিৎসাধীন ছিলেন। কিন্তু গত সপ্তাহে মঙ্গলবার আচমকাই শারীরিক অবস্থা খারাপ হয়। শরীরের অক্সিজেন লেভেল চলে যায় ৮০-র নীচে। মুহূর্তেই তাঁকে  কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রবিবারও প্রতি ঘন্টায় তিন লিটার করে অক্সিজেন দেওয়া হয় তাঁকে। অক্সিজেন স্যাচুরেশন লেভেল ৯২ শতাংশ ছিল রবিবার। তারপরেই ধীরে ধীরে শারীরিক অবস্থার উন্নতি ঘটেছে। এরপরেই  রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে ছুটি দেওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরেই প্যানিক অ্য়াটাক হয় তাঁর স্ত্রী মীরার। কোভিড মুক্ত হয়েও বাড়ি ফেরার পর ফের হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে থাঁকে। এই মুহূর্তে মীরা ভট্টাচার্যের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল।