আবারও ইকো পার্কে দুর্ঘটনা। এবার ইকো পার্কের ভিতরে চিলড্রেন পার্কের মধ্যে থাকা পুকুরে ডুবে মৃত্যু হল চার বছরের শিশুর। ঘটনায় শিশুটির সঙ্গে থাকা অভিভাবকদের গাফিলতি নিয়ে যেমন প্রশ্ন উঠছে, তেমনই পার্কের নিরাপত্তা নিয়েও ফের প্রশ্ন উঠে গেল। ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসেও ইকো পার্কে দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছিল বেশ কয়েকটি শিশু। 

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত শিশুর নাম শেখ আবেজ। সে কলকাতার তালতলা লেন এলাকার বাসিন্দা। এ দিন পরিবারের সঙ্গেই ইকো পার্কে বেড়াতে এসেছিল আবেজ। বিকেলের দিকে চার নম্বর গেটের কাছে চিলড্রেন পার্কে যাওয়ার পরই নিখোঁজ হয়ে যায় সে। বেশ কিছুক্ষণ খোঁজাখুজির পরে ইকো পার্কের নিরাপত্তারক্ষীদের বিষয়টি জানায় শিশুটির পরিবারের লোকজন। দ্রুত ইকো পার্কে থাকা বিপর্যয় মোকাবিলা দলের সদস্যদের খবর দেওয়া হয়। পুকুরে নামানো হয় ডুবুরি। সন্ধের দিকে পুকুরের মধ্যে থেকেই শিশুটির দেহ উদ্ধার করা হয়।

শিশুটিকে উদ্ধারের পরে চিনার পার্কের কাছে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। শিশুটির দিকে তার পরিবারের সদস্যরা কেন খেয়াল রাখলেন না, সেই প্রশ্ন উঠছে। আবার শিশুদের জন্য পার্কের মধ্যে কেন কোনও ঘেরাটোপ ছাড়াই ওই পুকুর রাখা হয়েছে বা সেখানে পর্যাপ্ত নজরদারি নেই কেন, সেই প্রশ্নও উঠতে শুরু করেছে।