আজ শনিবার সকালে দ্বিতীয়বারের জন্যে বাজেট পেশ করবেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। একদিকে সরকারি কর্মীদের ক্ষেত্রে ডিএ ঘোষণা করা হতে পারে অপরদিকে আয়করের ক্ষেত্রে বড়সড় ছাড়ের ঘোষণা করতে পারেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

আরও পড়ুন, শহরে ফিরল শীতের আমেজ, তাপমাত্রার পারদ নামল ১৩ ডিগ্রিতে

 
বাজেট শুরুর আগে প্রবল চাপের মুখে নরেন্দ্রমোদীর সরকার। একদিকে দেশের অর্থনীতির দুর্বল অবস্থা অপরদিকে সাধারণ মানুষের প্রত্য়াশা মেটানো, এই দুই-র টানাপোরেনের মাঝামাঝি কেন্দ্রীয় সরকার। তবে আমদানি শুল্ক কমানোর উপর জোর দিতে পারে মোদী সরকার। সেই মতো সোনার গয়নার রফতানি বাড়ানোর কথা খেয়ালে রেখে ২০২০এর বাজেটে আমদানি শুল্ক কিছুটা হলেও কমানো হতে পারে। এই মুহূর্তে দেশে সোনা আমদানি করার সময় ১২.৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক দিতে হয়। এই শুল্ক কমানো হলে সোনা ব্যবসায়ীদের অনেকটাই সুবিধা হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এর ফলে সোনার গয়না রফতানি কিছুটা বাড়ার একটা সম্ভাবনা রয়েছে। 

আরও পড়ুন, ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে অবস্থান বিক্ষোভ, সাউথ পয়েন্টের সামনে রাস্তায় বসে অবরোধ অভিভাবকদের

বর্তমানে, সোনার আমদানি ৩ শতাংশ কমে গিয়েছে। ২০১৮ থেকে ২০১৯ সালের পরিসংখ্য়ান অনুযায়ী এই আমদানি অনেকটাই কমেছে।  এই ক্ষেত্রে কারেন্ট অ্যাকাউন্ট ডেফিসিট কমে দাড়িয়েছে জিডিপির ০.৯ শতাংশ। ভারতে প্রতিবছর গড়ে সোনা আমদানির পরিমান ৮০০-৯০০ টন  করে থাকে। তবে বাজেট ২০২০-তে সোনা আমদানি শুল্ক কতটা কমাতে পারে মোদী সরকার, তা নিয়ে  অর্থনীতির কারবারিরা যথেষ্টই চিন্তায় রয়েছেন।