রাজ্যে পার্শ্বশিক্ষকদের আন্দোলন নিয়ে সংসদের সোচ্চার রাজ্যের বিজেপি সাংসদ। অচলাবস্থা কাটাতে সংশ্লিষ্ট সবপক্ষকে আলোচনায় বসার আহ্বান জানালেন রাজ্যপাল জগদীপ ধানকড়।  পশ্চিম মেদিনীপুরে রেবতী রাউতের মৃত্যু ও আন্দোলনকারীদের অসুস্থতা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিনি। 

বেতন কাঠামো-সহ চার দফা সল্টেলেক প্রথমে ধরনায় বসেছিলেন পার্শ্বশিক্ষক। এখন আমরণ অনশন চালাচ্ছেন। এরইমধ্যে আবার পশ্চিম মেদিনীপুরে রেবতী রাউত নামে এক পার্শ্বশিক্ষকের মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে এসেছে। পার্শ্বশিক্ষকদের আন্দোলন নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে।  টুইট করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধানকড়ও।  টুইটে তিনি লিখেছেন, 'আমি সংশ্লিষ্ট সবপক্ষকেই সর্বোচ্চ স্তরে আলোচনায় বসার আহ্বান জানাচ্ছি। রাজ্যে ১ হাজার পার্শ্বশিক্ষক বিক্ষোভে শামিল হয়েছেন। আমরণ অনশন বসেছেন ৩৭ জন।  পশ্চিম মেদিনীপুরে বেরতী রাউত নামে একজন মারা গিয়েছেন।  অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বিষয়টি অত্যন্ত চিন্তার।' 

 

উল্লেখ্য, শুক্রবার সংসদে পার্শ্বশিক্ষকদের আন্দোলন নিয়ে সোচ্চার হন রাজ্যের দুই বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় ও বাবুল সুপ্রিয়। লোকসভায় লকেট চট্টোপাধ্যায় প্রশ্ন তোলেন, 'রাজ্যে লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন পার্শ্বশিক্ষকরা। মুখ্যমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী কেন সেদিকে নজর দিচ্ছেন না?' বিজেপির বিরুদ্ধে পাল্টা মিথ্যা প্রচারের অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ও।