সত্য়ি সিবিআই-কে ঘোল খাওয়ালেন রাজীব কুমার। গ্রেফতারি এড়াতে এতদিন প্রায় পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন রাজীব। দূত মারফত সিবিআই-কে জানিয়েছিলেন তিনি ব্যক্তিগত ছুটিতে উত্তরপ্রদেশে রয়েছেন।  এবার তাঁকে রক্ষাকবচ দিল হাইকোর্টের বিচারপতি প্রতীপ প্রকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের এজলাস। তবে আপাতত ফাঁড়া কাটলেও রশিটা আলগা হল না, বরং আরও গভীর জালে জড়ালেন কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল।

আরও পড়ুনঃ
নতুন চাল রাজীবের, সিবিআই নোটিশকেই চ্যালেঞ্জ করলেন তাঁর আইনজীবীরা

রাজীবের উদ্দেশ্যে জারি করা নোটিস খারিজ করার আবেদন নিয়ে হাইকোর্টে গিয়েছিলেন তাঁর আইনজীবীরা। অভিযোগ নথিভুক্তিকরণের কিছুক্ষণের মধ্যেই  শুনানি হয় এই রায়ের।

শুনানিতে হাইকোর্ট যা যা জানিয়েছেঃ

১ সিবিআই নোটিশের ওপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দিচ্ছে আদালত।

২  ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পাসপোর্ট জমা দিতে হবে রাজীব কুমারকে। অর্থাৎ দেশ ছাড়তে পারবেন না রাজীব।

৩ এমনকি বাংলাও ছাড়তে পারবেন না তিনি। 

৪ পরবর্তী শুনানির আগে গ্রেফতার করা যাবে না তাঁকে।

৫ পরবর্তী শুনানির তারিখ ১২ জুন।

প্রসঙ্গত, এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে পাল্টা শীর্ষ আদালতে যেতে পারে সিবিআই।  গত ১৭ মে রাজীবের ওপর থেকে রক্ষাকবচ তুলে নেয় সুপ্রিম কোর্ট। দেওয়া হয় সাতদিনের অন্তর্বর্তীকালীন জামিনও।  রাজীবে এই জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর অনুরোধ খারিজ করে সুপ্রিক কোর্ট। বরং জিজ্ঞাসাবাদের স্বার্থে রাজীবকে গ্রেফতার করা যেতে পারে এই মর্মে মত দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

তারপরে যোগাযোগের কোনও রাস্তাই রাখেননি রাজীব। তাঁর সঙ্গে মুখোমুখি হওয়া তো দূরে থাক, তাঁর ফোনও সংযোগ সীমার বাইরে ছিল। এবার নতুন রায় রাজীবকে বাড়তি অক্সিজেন দিয়ে গেল। একই সঙ্গে বিপাকেও ফেলল অনেকটা।