গরমে প্রাণ ওষ্ঠাগত বাঙালির। প্রবল তাপপ্রবাহে বাড়ি থেকে বেরোলেই নাভিশ্বাস উঠছে। বাইরে বেরনোর সঙ্গী ছাতা, জলের বোতল ও রোদচশমা হলেও নিস্তার নেই সূর্যের চোখ রাঙানি থেকে। তাই এখন বাংলার মানুষের একটাই অপেক্ষা- কবে আসবে বৃষ্টি। বৃহস্পতিবার বিকেলে মন ভাল করা খবর দিল হাওয়া অফিস। 

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, পূর্ব বর্ধমান, বীরভূম, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর এই জেলাগুলিতে আগামী ২-৩ ঘণ্টার মধ্যে বজ্র বিদ্যুৎ-সহ ৩০-৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে। এছাড়া এই জেলাগুলিতে বৃষ্টিও হবে। এই জেলাগুলিতে গরমের মাত্রা প্রবল। কাঠফাটা রোদ আর তাপপ্রবাহের জেরে চরম অস্বস্তিকর আবহাওয়া তৈরি হয়েছে।  তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি বেশিই ছিল এই কদিন ধরে। কিন্তু আবহাওয়া দফতরের এই খবর মিলে গেলে, এই জেলার মানুষ ক্ষণিকের স্বস্তি পাবে। 

যদিও কলকাতা এবং উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার সম্পর্কে কিছু এখনও জানায়নি হাওয়া অফিস। বরং দুপুরের খবর অনুযায়ী আগামী  আগামী ২ দিনে কলকাতা ও সংলগ্ন জেলাগুলিতে বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই। বরং একই রকম গরম থাকবে। বাতাসে আর্দ্রতা থাকার জেরে অস্বস্তিও বজায় থাকবে।  কলকাতার তাপমাত্রাও ৩৭ ডিগ্রির আশপাশে থাকবে। 

কিন্তু রবিবার অথবা সোমবার থেকে আবহাওয়ায় পরিবর্তন দেখা যেতে পারে বলে জানিয়েছে আলিপুর হাওয়া অফিস।  রবিবার বা সোমবারে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। ফলে এই সময় থেকে কলকাতার মানুষ একটু স্বস্তি পাবে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। অন্যদিকে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে বৃষ্টি চলবে বলে জানা গিয়েছে।