সেতু বন্ধের পরে এবার বন্ধ হতে চলেছে সেতুর ওপর দিয়ে ভারী যান চলাচলও। সম্প্রতিক বেশ কিছু সেতু বন্ধের ফলে শহর জুড়ে যেন নাজেহেল দশা। ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে নিত্য যাত্রী থেকে শুরু করে বহিরাগত বহু মানুষদের। 

কিছু দিন আগেই বন্ধ ছিল শিয়ালদহের বিদ্যাপতি সেতু এবং বাঘাযতীন সেতু। দুটি সেতুই বর্তমানে খুলে দিলেও সেতু বন্ধ থাকায় চরম অসুবিধার সম্মুখিন হতে হয়েছে নিত্যযাত্রীদের। এবার সেই অসুবিধা আরও একটু বাড়িয়ে ভারী যান চলাচল নিষিদ্ধ হতে চলেছে খিদিরপুর লৌহ সেতু ও কালীঘাট সেতুতে। কলকাতার বেশ গুরুত্বপূর্ণ এই দুটি সেতু। তবে এই সেতু দুটির উপর দিয়েই আপাতত সমস্ত ভারী গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকবে। সেই ভারী গাড়ির আওতায় পড়ছে মূলত মালবাহী গাড়িই। 

বন্দোর লাগোয়া হওয়ার ফলে খিদিরপুরের এই ব্রিজটির উপর দিয়ে বন্দোর থেকে যাবতীয় পণ্যবাহী গাড়ি যাতায়াত করে থাকে। যার ফলে এই ব্রিজটি বন্ধ হলে সমস্যার মুখে পড়তে হবে বন্দোরগামী সেই সব গাড়িগুলিকে। 

বর্তমানে এই ব্রিজটির দায়িত্বে আছে হুগলি রিভার ব্রিজ কমিশনার্স বা এইচআরবিসি। তারাই কলকাতা পুলিশের কাছে খবর পাঠান এই ব্রিজটিকে ভালো রাখতে কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও মেরামতির প্রয়োজন। খিদিরপুরের এই সেতুটি বেশ পুরনো, তাই প্রয়োজন হয়ে পড়েছে শীঘ্র সংরক্ষণের। সেই কারণেই বন্ধ রাখতে হচ্ছে এই সেতুর উপর দিয়ে যান চলাচল। খিদিরপুরের এই ব্রিজটির সঙ্গে সঙ্গে বন্ধ হতে চলেছে কলকাতার আরও একটি ব্যস্ততম ব্রিজ, আর সেটা হল কালিঘাট ব্রিজ। কিছুদিন আগেই এই ব্রিজটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করলে সেখানে দেখা দেয় বেশ কিছু সমস্যা। সেই কথা মাথায় রেখেই সেখান দিয়েও বন্ধ হতে চলেছে ভারী যান চলাচল।  

কলকাতায় এমনিতেই যানজটের সমস্যা তার পরে একের পর এক ব্রিজের এইভাবে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সমস্যা আরও বেড়েছে। তবে কলকাতা পুলিশ থেকে জানান হয়েছে রাস্তা বদলে অন্য রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করবে এই সব গাড়ি গুলি। রাস্তা বদলালেও রাস্তায় যানজট যে কতটা আয়ত্বের মধ্যে থাকবে তা নিয়ে ধন্ধে আছেন সকলেই।