এআই নিয়ে বিশ্বজুড়ে চলেছে হইচই। কারণ এই এআই জন্য তথ্য বিশ্লেষণ অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু এআই এর জন্য মানুয কাজ হারাচ্ছেন বলেও বিশ্বজুড়ে বির্তক বেধেছে। স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তির জমানায় এআই বা আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এই এআই প্রযুক্তিতেই এবার নজরদারির কাজে প্রযোগ করতে চলেছে রাজ্য সরকার। যার প্রথম মাস্টার প্ল্যান হিসেবে কলকাতা এবং নিউটাউনকে বেছে নেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে কলকাতা শহর এবং নিউ উপনগরীর নিরাপত্তার হাল হকিকত নিয়ে সমানে তথ্য বিশ্লেষন করে যাবে এআই। দেশের মধ্যে এই প্রথম প্রথম এআই প্রযুক্তিকে এভাবে ব্যবহার করতে চলেছে। 

দেখুন ভিডিও - তিলোত্তমার নতুন ডেস্টিনেশন হো চি মিন সিটি, দেখুন ভিডিও

কিন্তু কি এই আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স প্রযুক্তি? জিপিএস প্রযুক্তি যুক্ত ক্যামেরা লাগানো থাকবে গাড়িতে। সেই গাড়িটি যখন রাস্তার বিভিন্ন জায়গাতে ঘুরতে শুরু করবে তখন জিপিএস ক্যামেরাটি রাস্তার চিত্র, যেমন রাস্তার কোন অংশের বেহাল দশা সেগুলির তৎক্ষনাৎ বিশ্লেষন করে রাস্তার আসল অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ তার নিজের সার্ভারে অটো-সেভ করবে। শুধুমাত্র রাস্তার বেহাল দশা রক্ষণাবেক্ষণ ছাড়াও, রাস্তার ধারে কোথাও নির্মাণ সামগ্রী পড়ে রয়েছে কিনা তাছাড়া রাস্তাজুড়ে  কোনও বেআইনী স্টল গড়ে উঠেছে কিনা সেগুলিও রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে। ইতিমধ্যেই নিউটাউনে রাস্তাজুড়ে থাকা বেআইনী স্টল-এর ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রয়োগ করা হয়েছে। এরপর শুরু হবে আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স প্রযুক্তি দ্বারা অভিযান। 

আরও পড়ুন - একটু কাছাকাছি, কলকাতার যে দশটি জায়গায় প্রিয়জনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হওয়া যায়
এআই (আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স) প্রযুক্তি রাজ্য তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ থেকে শুরু করা হয়েছে। মমতা বন্দোপাধ্যায় ক্ষমতায় আসার পর থেকেই নিউটাউন স্মার্ট সিটি হিসেবে গড়ে উঠছে। এবার আরও এক নতুন পদক্ষেপ নিউটাউন-কে স্মার্ট সিটিতে রূপান্তরিত করার, সেই চেষ্টা কতটা কার্যকরী হয় তা দেখার।