Asianet News BanglaAsianet News Bangla

কলকাতা পুরসভা এলাকায় বাড়ছে সংক্রমণ, ফের চালু কোয়ারেন্টাইন ইউনিট ও সেফ হোম

পুরসভা এলাকায় সম্প্রতি বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। শহরে কোভিড কেসের ক্রমাগত বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে কোয়ারেন্টাইন ইউনিট এবং সেফ হোম নতুন করে চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেএমসি। 

Kolkata Municipal Corporation to reopen quarantine units and safe homes amid surge in Covid cases bpsb
Author
Kolkata, First Published Oct 24, 2021, 6:20 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

কলকাতা মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন (Kolkata Municipal Corporation) বা কলকাতা পুরসভা এলাকায় সম্প্রতি বাড়ছে করোনা সংক্রমণ(surge in Covid cases)। শহরে কোভিড কেসের ক্রমাগত বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে কোয়ারেন্টাইন ইউনিট(quarantine units) এবং সেফ হোম (safe homes) নতুন করে চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেএমসি। জানা গেছে, শহরে ছড়িয়ে পড়া বা কোভিড সংক্রমণ কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায় তার কৌশল নিয়ে আলোচনা করার জন্য পুরসভা একটি জরুরি বৈঠক করে।

গুরুতর রোগীদের জন্য অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখার জন্য কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি, কেএমসি শহরে কোভিড কেসের ক্রমবর্ধমান বৃদ্ধির কথা মাথায় রেখে পর্যাপ্ত সংখ্যক হিয়ার্স ভ্যান প্রস্তুত রাখতেও বলেছে। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুসারে কেএমসি চম্পামণি মাতৃসদনে একটি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার পুনরায় খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়াও খোলা হবে দুটি সেফ হোম। যার মধ্যে একটি হবে সায়েন্স সিটির কাছে ও দ্বিতীয়টি কাশীপুরে। 

এই পাঁচ বলিউড সেলিব্রিটির কেরিয়ার প্রায় নষ্ট করে দিয়েছিলেন সলমন খান

এই সেফ হোমদুটিতে শিশু ও মহিলাদের আশ্রয় দেওয়া হবে। কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের আধিকারিক জানিয়েছেন কোভিড ছড়াচ্ছে বেশি মাত্রায়, এমন এলাকায় শিশুস্বাস্থ্যের ওপর বেশি নজর দেওয়া হচ্ছে। শহর কর্তৃপক্ষও শহর জুড়ে স্যানিটাইজেশন অভিযান পুনরায় শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর পাশাপাশি, কেএমসি শহুরে প্রাথমিক স্বাস্থ্য ক্লিনিকগুলিতে আরটি-পিসিআর পরীক্ষা বা কোভিড পরীক্ষার জন্য সোয়াব সংগ্রহের সুবিধা জোরদার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

উল্লেখ্য, শনিবারের স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিন অনুযায়ী,   গত ২৪ ঘন্টায়  কোভিড সংক্রমণ বেড়ে  আড়াইশো ছুঁইছুঁই কলকাতায় । রাজ্যে কোভিড সংক্রমণ এবার ৯৭৪ জনে এসে দাঁড়িয়েছে। তবে একদিনে সর্বনিম্ন সংক্রমণ হয়েছে পুরুলিয়ায় । এখানে একদিনে ২ আক্রান্ত হয়েছেন। ৪ জন করে আক্রান্ত হয়েছে কালিংপং ও  আলিপুরদুয়ারে । ৫ জন করে আক্রান্ত হয়েছে  মালদহে। 

T20 World Cup- ক্রিকেট আর সন্ত্রাস একই সঙ্গে দুটি ম্যাচ খেলছে পাকিস্তান, কটাক্ষ রামদেবের

এবার সবার থেকে অনেকটাই ব্যবধানে গিয়ে সর্বোচ্চ সংক্রমণ এই মুহূর্তে ফের কলকাতায়। কলকাতায় একদিনে আক্রান্ত  ২৬৮। দ্বিতীয় স্থানে উত্তর ২৪ পরগণায় সংক্রমণ একদিনে ১৪৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। সংক্রমণ আগের থেকে বদল হয়েছে উত্তরবঙ্গে। কিন্তু দার্জিলিং একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ২৭ জন। কোচবিহারে ১০ জন আক্রান্ত। অপরদিকে দক্ষিণবঙ্গে  হাওড়াতে ৭৬ জন এবং হুগলিতে ৮৪ জন এবং  দক্ষিণ ২৪ পরগণাতে  একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৯ জন।

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios