সকাল থেকে মেঘলা থাকলেও দেখা মিলল না বৃষ্টির। প্রবল গরমের সঙ্গে হাত মেলাল ঘাম। ফলে গরমের শুরুতেই এসি অন করছে কলকাতা। 

আলিপুর আবহাওয়া দফতর বলছে, আপাতত শনিবার কলকাতায় বৃষ্টির সম্বাবনা কম। তবে  দক্ষিণ ২৪ পরগণায় বৃষ্টি হলে তাঁর প্রভাব পড়েব মহানগরে। সেক্ষ্ত্রে ছিটেফোটা পেতে পারে শহর। তবে শনিবরা না হলেও রবি ও সোমবার বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে মহানগরে। আপাতত রাতে হাঁটাহাঁটি করলেই ভিজবে গা। 

হাওয়া অফিসের খবর, শনিবার শুধু উপকূলের জেলাগুলিতে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। শনিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৫.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি।  শহরের বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৮৭ শতাংশ। রবিবার ও সোমবার বিক্ষিপ্তভাবে ঝড় বৃষ্টি হতে পারে। জম্মু-কাশ্মীরের উপর একটি পশ্চিমী ঝঞ্জা অবস্থান করছে। তা থেকেই আসতে পারে এই ঝড়বৃষ্টি।

আবহাওয়া দফতরের খবর অনুযায়ী,  জোড়া ঘূর্ণাবর্তের জেরে প্রবল ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে।  বঙ্গোপসাগরে বিপরীত ঘূর্ণাবর্ত। এর প্রভাবে প্রচুর জলীয় বাষ্প ঢুকছে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে। বাংলাদেশ অসংলগ্ন এলাকা এবং গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের উপর দুটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছে। এর প্রভাবেই ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে। ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা পূর্ব-পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, হাওড়া, কলকাতা এবং দুই ২৪ পরগনায়। 

বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি। বিক্ষিপ্তভাবে ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার বেগে দমকা হাওয়া বইতে পারে।উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং-কালিম্পং-এ সামান্য বৃষ্টির সম্ভাবনা।  শনিবারে শুধু উপকূলের জেলাগুলিতে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা। তবে যেভাবে জলীয়বাষ্প ঢুকছে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে। তাতে বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকলে রবিবার ও সোমবার ঝড় বৃষ্টি হতে পারে বিক্ষিপ্তভাবে। উত্তর-পশ্চিম ভারতের শীতল হাওয়া আর বঙ্গোপসাগর থেকে পূবালী হওয়ার সংঘাতেও তৈরি হচ্ছে বজ্রগর্ভ মেঘ। এই মুহূর্তে একটি পশ্চিমী ঝঞ্জা অবস্থান করছে জম্মু-কাশ্মীরের উপর। আরও একটি পশ্চিমী ঝঞ্জা আসবে রবিবার উত্তর পশ্চিম ভারতে।