নতুন বছরের উপহার এবার উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহণ। আজ শুক্রবার ১০ জানুয়ারি শুক্রবার নতুন দশকের  প্রথম উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহণ দেখার সৌভাগ্য় হবে সবার। তবে সূর্যগ্রহণের সময় যেমন বিশেষ চশমা পরে দেখার পরামর্শ দেওয়া হয়, চন্দ্রগ্রহণের ক্ষেত্রে কিন্তু সেই সতর্কতা নেই। খালি চোখে দেখা যাবে চন্দ্রগ্রহণ। জানা গিয়েছে, দেশের সমস্ত জায়গা থেকেই এই গ্রহণ দেখা যাবে। এছাড়া আফ্রিকা, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া-সহ এশিয়ার বিভিন্ন জায়গা থেকে দেখা যাবে।  জানা গেছে, তবে ব্রিটেন, কানাডা, দক্ষিণ আমেরিকায় এই উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে না।


গত বছর বড় দিনের সঙ্গে সবাই পেয়েছিল দারুণ উপহার। এক ঐতিহাসিক সূর্যগ্রহণ দেখতে পেয়েছিল গোটা দেশ,  বিজ্ঞানীদের ভাষায় 'রিং অব ফায়ার'। যা মানুষ শেষবার  দেখেছিল ১৭২ বছর আগে। আর এবার প্রথম উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহন দেখতে পাবে সবাই। চাঁদ এবং পৃথিবী নিজ নিজ কক্ষপথে চলার সময় সূর্য, পৃথিবী ও চাঁদ যখন একই সরলরেখায় আসে এবং সূর্য ও চাঁদের মাঝখানে পৃথিবীর অবস্থান হয় তখন পৃথিবীর ছায়া গিয়ে পড়ে চাঁদের ওপর। পৃথিবী থেকে দেখলে কিছু সময়ের জন্য আংশিক অদৃশ্য হয়ে যায় চাঁদ। এই ঘটনাকেই চন্দ্রগ্রহণ বলা হয়। আর আংশিক গ্রহণের সময় নির্দিষ্ট পরিমাণ সূর্যের আলো পৃথিবীকে ছাপিয়ে চন্দ্রপৃষ্ঠে পড়ে। তাকে বলা হয় আংশিক চন্দ্রগ্রহণ।  

 শুক্রবার ভারতীয় সময় রাত ১০ টা বেজে ৩৭ মিনিটে শুরু হবে এই গ্রহণ।  টানা ৪ থেকে ৫ মিনিট ধরে চলবে এই গ্রহণ। শেষ হবে ১১ জানুয়ারি রাত ২ টো বেজে ৪২ মিনিট অবধি। নতুন বছরে এই মুহূর্তে টানা বৃষ্টি আর শীতে চরম অস্বস্থিতে শহরবাসী। তাই যদি আজকে এই  উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহন কোনওভাবে  দেখতে ভূলে যান, তাহলে আরও একাধিক  সুযোগ রয়েছে আপনার জন্য়। কারণ নতুন বছরে অর্থাৎ ২০২০ সালে ১০ জানুয়ারি ছাড়াও ৫ জুন শুক্রবার, ৫ জুলাই বুধবার এবং ৩০ নভেম্বর সোমবার  রয়েছে চন্দ্রগ্রহণের যোগ। ১০ জানুয়ারি শুক্রবার গ্রহণের মুহূর্তে পৃথিবীর ছায়ায় চাঁদের ৯০ শতাংশ ঢেকে যাবে। এই দিনে অন্যান্য দিনের তুলনায় চাঁদের উজ্জ্বলতা অনেক কমে যায়।