বউবাজারে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতে প্রলেপ দিতে এবার দ্রুত উদ্য়োগ নিচ্ছে কেএমআরসিএল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্য়েতেই বোর্ড মিটিংয়ে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্থা। ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারকে আপৎকালীন ৫ লক্ষ টাকা করে দেবে সংস্থা।  

আপাতত মুখ্যমন্ত্রীর প্রস্তাবেই সিলমোহর দিল মেট্রো কর্তৃপক্ষ। আগেই বউবাজারে ক্ষতিগ্রস্তদের ৫লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণের প্রস্তাব দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এই সেই পথেই হাঁটতে চলেছে সংস্থা। সূত্রের খবর,গতকাল সন্ধ্য়েতেই এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্থা। তারপর থেকেই যাবতীয় তৎপরতা দেখা গিয়েছে কেএমআরসিএল-এর তরফে। 

জানা গিয়েছে,প্রাথমিকভাবে চেকে টাকা দেওয়ার কথা থাকলেও বিকল্প পথ ভাবছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। কারণ চেকে টাকা নিতে গেলে ক্ষতিগ্রস্তদের ব্য়াঙ্কের নথি দিতে হবে। বাতিল চেক না পেলে এই ক্ষতিপূরণের টাকা পাওয়া সম্ভব নয় ক্ষতিগ্রস্তদের। কিন্তু বাস্তব পরিস্থিতি বলছে,বাড়ি ছাড়া হয়ে এখন অনেকের কাছেই ব্যাঙ্কের উপযুক্ত নথি নেই। সেক্ষেত্রে বিকল্প কী হতে পারে এই নিয়ে আলোচনা সেরেছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। প্রাথমিকভাবে তাঁদের কাছে ৭৬টা পরিবারের তালিকা পড়েছে বলে জানিয়েছে সংস্থা। তবে এই তালিকাটা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে কেওমআরসিএল-এর আধিকারিকরা। তবে কোনওভাবেই তা ১০০ছাড়াবে না বলেই অনুমান সংস্থার।

মেট্রো সূত্রে খবর, এই তালিকা পুরসভা ও পুলিশের সঙ্গে বসে মিলিয়ে নেবে কেএমআরসিএল। শুক্রবারই ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের চূড়ান্ত তালিকা তৈরি করে ফেলবে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই বউবাজারে ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে সংস্থা। তাঁদের কাছ থেকে ব্যাঙ্কের নাম অ্য়াকাউন্ট নম্বর জানতে চাওয়া হয়েছে। মেট্রো কর্তৃপক্ষের দাবি,এই অ্য়াকাউন্ট নম্বর পেলেই আইএফএসসি কোড বের করে সোমবার থেকেই টাকা পাঠাবেন তারা। সেকারণে সপ্তাহের শেষ ফুল ওয়ার্কিং ডেইজ-এ কাজ এগিযে রাখা হচ্ছে। যাতে সোম বা মঙ্গলবারের মধ্যেই আপৎকালীন ৫ লক্ষ টাকা পেয়ে যান ক্ষতিগ্রস্তরা।