পার্সিদের  ধর্মীয় স্থানে অন্য ধর্মের লোক যেতে পারব কিনা তা নিয়ে হাইকোর্টে সওয়াল-জবাবের লাইভ স্ট্রিমিং বা সরাসরি সম্প্রচার দেখা যাবে। ইউটিউবে দেখা যাবে ওই লাইভ স্ট্রিমিং। বুধবার এরকমই নজিরবিহীন নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। আদালতকক্ষের দু'দিকে দুটি ক্যামেরা বসানো হবে শুনানি রেকর্ড করার জন্য।  বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিচারপতি কৌশিক চন্দর ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশ, লাইভ স্ট্রিমিং এর খরচ মেটাতে হবে মামলাকারী সংগঠনকে। পুরো বিষয়টি তত্ত্বাবধান করতে হবে হাইকোর্টের ওরিজিনাল সাইডের রেজিস্ট্রারকে। 

পার্সি সম্প্রদায়ের এক মহিলা ভিন ধর্মের এক ব্যক্তিকে বিয়ে করেছিলেন। ওই মহিলার সন্তানদের যাতে পারসিকদের উপাসনাস্থলে (অন্য ধর্মে বিয়ে করলে সন্তানদের সেখানে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে) অবাধে ঢুকতে দেওয়া হয়, কোর্টের কাছে আবেদন জানান তিনি এবং তাঁর মা। ২০১৭ সালে তাঁরা কলকাতা হাইকোর্টে বিচারপতি সৌমেন সেনের এজলাসে মামলা করেন। সেই মামলায় পার্সি জরাথ্রুস্টিয়ান এসোসিয়েশন এর তরফে মামলায় পক্ষভুক্ত হতে চেয়ে একটি আবেদন করা হয়৷ 

কারণ এই মামলার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে পারসিকদের সংস্কৃতি, প্রথা। বিচারপতি সৌমেন সেনের এজলাসে ওই এসোসিয়েশনের  আইনজীবী ফিরোজ এডুলজি আর্জি জানান যাতে এই মামলার সওয়াল-জবাবের সরাসরি সম্প্রচার হয়৷ কারণ সারা ভারতবর্ষে পার্সি সম্প্রদায়ের মানুষজন রয়েছেন। পারসিকদের ধর্মীয় প্রথার সঙ্গে বিষয়টি যেহেতু জড়িত তাই তাঁরাও আদালতের সওয়াল-জবাব পর্ব দেখুক। কিন্তু বিচারপতি সৌমেন  সেন গত বছর ১০ জানুয়ারি সরাসরি সম্প্রচারের আর্জি খারিজ করে দেন। 

ওই এসোসিয়েশন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিচারপতি কৌশিক চন্দর ডিভিশন বেঞ্চে আপিল মামলা করেন। বুধবার ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছে, সরাসরি সম্প্রচার করা যাবে এই মামলার সওয়াল-জবাবের।