সাহসিকতার পুরস্কার পেলেন আনন্দপুরকাণ্ডের নির্যাতিতা। মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় তাঁর কাজের প্রশংসা করলেন।  শুধু তাই নয়, গুরুতর জখম অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়ায় তাঁর চিকিৎসার সব খরচ বহন করবে বলে ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার।

পুলিশ সূত্রে খবর, ঘটনায় এখনও অধরা অভিযুক্ত। সিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে অভিযুক্তের গাড়িটি বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ । আক্রান্ত প্রতিবাদী মহিলা নীলাঞ্জনার পায়ের সফল অস্ত্রোপচার হয়েছে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে বেসরকারি ভর্তি রয়েছেন তিনি। পুলিশের দাবি, অভিযুক্ত যুবককে চিহ্নিত করেছে পুলিশ। পূর্ব যাদবপুরের বাসিন্দা  অভিযুক্ত যুবকের নাম অভিষেক পাণ্ডে ।  অভিযুক্ত অভিষেকের খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ।

যদিও, অভিযুক্তের মায়ের দাবি, ওই তরুণীর সঙ্গে ৫ বছরের সম্পর্ক ছিল অভিষেকের। পুলিশ সূত্রে খবর,নির্যাতিতা তরুণীর বয়ানে মিলেছে বিস্তর অসঙ্গতি। তাঁর মায়ের দাবি, অভিযুক্ত অভিষেক এক সময়ে তার সহকর্মী ছিলেন।  কিন্তু পুলিশের কাছে এই দীর্ঘ পরিচয়ের কথা গোপন করেছেন তিনি। 

সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে অভিযুক্তের গাড়িটি বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। অন্যদিকে আক্রান্ত প্রতিবাদী মহিলা নীলাঞ্জনার পায়ের সফল অস্ত্রোপচার হয়েছে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে। এই অবস্থায় রাজ্য সরকারের তাঁর চিকিৎসার খরচ করার সিদ্ধান্ত খুশি তাঁর পরিবার।