রাজ্য়ে নিত্যদিন বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। বেগতিক দেখে আগেই হাসপাতালে আলাদা করে বেডের ব্য়বস্থা করেছে রাজ্য় সরকার। তাতেও শঙ্কা কাটছে না। তাই বিপত্তি এড়াতে বিয়ে বাড়ি, কমিউনিটি হল এমনকী স্টেডিয়ামও নিয়ে রাখতে চলেছে রাজ্য় সরকার। মঙ্গলবার তেমনই জানিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়।

রাজ্যে করোনা আক্রান্তের পরিসংখ্য়ান বলছে,এদিন আরও দুজনের শরীরে করোনার জীবাণু পাওয়া গিয়েছে। সব মিলিয়ে রাজ্য়ে এখন করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া ৯। যার মদ্য়ে দমদমের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে আক্রান্ত বা সন্দেহভাজনদের কোয়ারেন্টাইনে রাখার জন্য শহরের বিয়েবাড়ি, কমিউনিটি হল, স্টেডিয়ামগুলি নেওয়ার পরিকল্পনা করছে রাজ্য়। 

রাজ্য়ে করোনা মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই বেলেঘাটা আইডি-তে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ১০০টি অতিরিক্তি বেডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু তাতেও কাজের কাজ হবে না বলে আশঙ্কা করছেন মুখ্য়মন্ত্রী।  সেকারণে কদিন আগেই বেলেঘাটার আশপাশের নার্সিংহোমগুলিকে আইসোলেশনের জন্য় তৈরি থাকতে বলেছেন মুখ্য়মন্ত্রী। সেক্ষেত্রে রাজ্য সরকার টাকা দেবে বলেও আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। 

ইতিমধ্য়েই করোনা আক্রান্তদের জন্য ৫০ বেডের আলাদা ওয়ার্ড আরজি কর হাসপাতালে চালু হয়েছে। টালিগঞ্জের বাঙুর হাসপাতালের নতুন ভবনে ১৫০ বেডের আইসোলেশন ওয়ার্ড চালু করেছেন মুখ্য়মন্ত্রী। রাজারহাটে ক্যানসার হাসপাতালে ৫০০ বেডে নয়া ওয়ার্ড চালু হয়েছে । সোমবার দমদমের প্রৌঢ়ের মৃত্যুর পর থেকে প্রশাসন আরও সতর্ক হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে করোনা আক্রান্ত বা সন্দেহভাজনদের জন্য চিকিৎসার বন্দোবস্ত হতে পারে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজেও।

এদিন নিজেই করোনা রুখতে হাসপাতালগুলিতে সাডেন ভিজিটে যান মুখ্য়মন্ত্রী। সেখান মাস্কের বাক্স দিয়ে আসেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে। আগাম ব্য়বস্থা হিসাবে ইতিমধ্যেই আউটডোরে খুব প্রয়োজন না  থাকলে আসতে না করেছে কর্তৃপক্ষ। কেবল অপারেশনের কেস হলেই হাসপাতালে আসতে বলা হচ্ছে।  এদিন রাজ্যে আরও দু’জনের শরীরে মিলেছে করোনার জীবাণু। সূত্রের খবর, আক্রান্তদের একজন সদ্যই লন্ডন থেকে ফিরেছেন। বর্তমানে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন তাঁরা।