তাঁর অধিনায়কত্বে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে জয় এসেছে বহুবার। এবারও সেই একইভাবে বিপক্ষের থেকে নিজের দিকে মত ঘোরালেন তিনি।  আগামী দিনে বিসিসিআই-এর মসনদে দাদাগিরি করতে দেখা যাবে টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে।

স্বাভাবিকভাবেই সৌরভের এই খবরে খুশির হাওয়া বাংলা ক্রিকেট থেকে রাজনৈতিক মহল সব জায়গায়। ইতিমধ্যেই সৌরভের এই সাফল্যের জন্য় টুইট করেছেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইটারে মমতা লিখেছেন, বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত হওয়ার জন্য তোমাকে অভিনন্দন। তুমি ভারত তথা বাংলাকে গর্বিত করেছ। তুমি সিএবি-র প্রেসিডেন্ট থাকায় আমরা গর্বিত। আশা রাখছি, আগামী দিনে আরও একটা ভালো ইনিংস উপহার পাব। 

 

 

রাজ্যের ক্রীড়া জগতের অতীত বলছে, জগমোহন ডালমিয়া মারা যাওয়ার পর সিএবি প্রেসিডেন্ট পদে সৌরভকে নিয়ে আসেন মুখ্য়মন্ত্রী। সেই সময় নানা বিপত্তির মুখে পরলেও সৌরভের পাশে দাঁড়ান মমতা। যার জেরে বিপক্ষের মুখে পড়তে হয়নি বাংলার  দাদাকে। যদিও নবান্ন থেকে সৌরভের নাম ঘোষণা হওয়ায় মুখ খুলেছিলেন সিএবির বেশ কয়েকজন। সেই সময় তাঁরা বলেন, একটা সংস্থার সদস্য়দের সিদ্ধান্তের মাধ্য়মে এই পদের নির্বাচন হওয়া উচিত ছিল। যেহেতু মুখ্যমন্ত্রী সৌরভের নাম  ঘোষণা করেছেন তাই তাঁর বিরুদ্ধে কোনও কথা বলবেন না তাঁরা। তাঁর পরিবর্তে সিএবির অ্য়ানুয়াল জেনারেল মিটিংয়ের অপেক্ষা করবেন তাঁরা। 

পরে অবশ্য সৌরভের সিএবি প্রেসিডেন্ট পদে বসা নিয়ে মুখ খোলেন মমতা। তিনি বলেন, এটা কোনওভাবেই তাঁর চাপিয়ে দেওয়া সিদ্ধান্ত নয়। ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অববেঙ্গলের কর্মকর্তাদের অনুমতি নিয়েই এই ঘোষণা করেছেন তিনি। জগমোহন ডালমিয়ার মতো একজন ব্যক্তিত্ব চলে যাওয়ায় তড়িঘড়ি সৌরভকে ওই পদে বসানো হয়েছে। এর মধ্যে বিতর্ক খুঁজতে যাওয়া উচিত নয়। তবে মুখ্য়মন্ত্রী যাই বলুন না কেন, সিএবি প্রেসিডেন্ট পদে সৌরভের নির্বাচন যে তাঁর কথাতেই হয়েছিল তা জানেন সবাই।