প্রকাশ্য় রাস্তায় স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাল স্বামী। দেখেও এগিয়ে আসার সাহস পেল না কেউ। শেষে নিরাপত্তারক্ষীরা এসে ওই মহিলাকে উদ্ধার করে। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে আক্রান্ত মহিলাকে। 

স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বচসা গড়াল খুনোখুনি পর্যন্ত। জানা গেছে, দু-জনের ডিভোর্সের মামলা চলছিল দীর্ঘদিন। এদিন ঘটনাটি  ঘটেছে দক্ষিণেশ্বর স্কাইওয়াক-এর পাশে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সন্ধের দিকে স্কাই ওয়াকের পাশে দাঁড়িয়ে ফোনে কথা বলছিলেন আক্রান্ত  মহিলা। হঠাৎই একজনের সঙ্গে  কথা কাটাকাটি শুরু হয় তাঁর। কথা বার্তায়  বোঝা যায় , উনি ওই মহিলার স্বামী। দেখতে না দেখতেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বাধে। আচমকা পকেট থেকে একটি ভোজালি বের করে স্ত্রীকে কোপ মারতে শুরু করে স্বামী। 

ঘটনার আকস্মিকতায় চমকে যায় সবাই। স্কাই ওয়াকের  সামনে দাঁড়িয়ে থাকা মহিলা নিরাপত্তারক্ষীও এগোতে সাহস পাননি। শেষে দুই পুরুষ নিরাপত্তারক্ষী এলে ছাড়া পায়  আক্রান্ত। জখম অবস্থায় ওই মহিলাকে সাগর দত্ত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হামলাকারী স্বামীকে গ্রেফতার করেছে বেলঘড়িয়া থানার পুলিশ। সূত্রের খবর, মামলা নিয়ে দুজনের মধ্য়ে তিক্ততা বাড়তে থাকে। যার জেরে এই পরিণতি হল ওই মহিলার। 

প্রশ্ন উঠেছে দক্ষিণেশ্বরের স্কাইওয়াকের মতো জমজমাট জায়গায় কীভাবে এই ধরনের ঘটনা ঘটল। মহিলাকে কোপাতে দেখেও এগিয়ে এলে না কেউ। তবে কি হারাতে চলেছে শহরের মানবিক মুখ। এক সময় যেই শহরকে 'সিটি অফ জয়' বলে চিনত সকলে আজ বিবেক বদলে ফেলেছে সেই শহর। আগের মতো মানবিক মুখ নেই শহরবাসীর।