বসন্তের ছোওয়ায় বিভিন্ন রকমের সবজি খেতে অনেকেই ভালোবাসে। এমনকি সবজি বাজার করতেও পছন্দ করেন অনেকে। কিন্তু এবছর সবজি বাজার করা খানিকটা চাপেরই হয়ে গেছে সাধারণের কাছে। কারণ যে সবজিতেই হাত দিচ্ছেন ক্রেতারা, সেই সবজিরই দামের ছ্যাঁকা খেতে হচ্ছে তাদের। শুধু কি সবজি, মূল্যবৃদ্ধির রেশে নাম লিখিয়েছে  প্রত্যেকেই বিশেষ করে পাঠার মাংস। যারা রোজকার বাজার রোজ করেন তারা জেনে নিন কেমন রয়েছেন সোমবার দোলের দিনে সবজির দর।

আরও পড়ুন, দেশে প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে মৃত্যু মুর্শিদাবাদে
 
 খোলা বাজারে জ্যোতি আলু বিকচ্ছে ১৮ থেকে ২২ টাকা প্রতি কিলো দরে। এবং চন্দ্রমুখী আলু ২৪ টাকা প্রতি কিলো দরে। তবে সবজি বিক্রেতাদের অনুমান, আগামী সাত দিনের মধ্যে  আলুর দামে পরিবর্তন আসবে। এছাড়া অন্যান্য সবজির দাম হল খানিকটা এরকম। খোলা বাজারে পেঁয়াজের দর চলছে প্রতি কেজি ৪০ টাকা দরে। জ্যোতি আলু ৮ থেকে ২২ টাকা প্রতিকিলো, চন্দ্রমুখী আলু  ২৪ টাকা ,   আদা  ১২০ টাকা প্রতিকিলো,কুমড়ো  ৩০ টাকা প্রতিকিলো,ফুল কপি প্রতি পিস ১০ থেকে ২০ টাকা। উচ্ছে  ১০০ টাকা প্রতিকিলো, ঝিঙে ৩০ থেকে ৪০ টাকা প্রতিকিলো, বেগুন  ৩০ টাকা প্রতিকিলো, টমেটো ৪০ টাকা প্রতিকিলো, লঙ্কা ৫০ টাকা প্রতিকিলো, গাজর ৪০ টাকা প্রতিকিলো, বাধা কপি ১০ থেকে ১৬ টাকা প্রতিকিলো।

আরও পড়ুন, উত্তরপাড়ার ব্য়বসায়ী খুনের মামলায় ছেলের ফাঁসি, বাবা-মায়ের যাবজ্জীবন

অপরদিকে  খোলা বাজারে  প্রতিকেজি রুই মাছ(গোটা) ১৬০ থেকে ২২০ টাকা, রুই মাছ(কাটা) ২০০ থেকে ২৫০ টাকা, কাতলা মাছ(গোটা) ২৫০ থেকে ২৮০টাকা, কাতলা মাছ (কাটা) ৩৫০ থেকে ৪০০টাকা, বাটা মাছ ১৮০টাকা, ভেটকি মাছ ৩৫০ থেকে ৫০০ টাকা, গলদা চিংড়ি ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা, বাগদা ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা, তোপসে মাছ ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা, পমফ্রেট মাছ ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, চিতল মাছ ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা, পাবদা মাছ  ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, ট্যাংরা মাছ ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা, পার্শে মাছ ৩০০ থেকে ৫০০টাকা। এবং পাশাপাশি মুরগি  ৮০ থেকে ৯০ টাকা কিলো, পাঁঠার মাংস ৬৪০থেকে৬৮০ টাকা কিলো।

আরও পড়ুন, নারীদিবস কার চোখে কেমন, কী বলছেন এশিয়ানেট নিউজের নারী-শক্তি-র দল