ফের মেট্রোয় বিপত্তি।  আপ লাইনে আগুন ফুলকি দেখা পাওয়াকে কেন্দ্র করে আতঙ্ক ছড়াল রবীন্দ্রসদন স্টেশনে। প্রথমে মেট্রো পরিষেবা পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। আপাতত ময়দান থেকে নোয়াপাড়া ও রবীন্দ্র সরোবর থেকে নোয়াপাড়া পর্যন্ত মেট্রো চলছে।  কখন পরিষেবা পুরোপুরি স্বাভাবিক হবে, তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি মেট্রো  আধিকারিকরা।

ঘড়িতে তখন দুপুর পৌনে ১টা। রবীন্দ্রসদন স্টেশনে প্ল্যাটফর্মে মেট্রোর অপেক্ষা দাঁড়িয়েছিলেন যাত্রীরা। আচমকাই আপ লাইনে আগুনের ফুলকি দেখতে পান তাঁরা।  প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, চোখের নিমেষের কালো ধোঁয়া ঢেকে যায় প্ল্যাটফর্ম। ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক।  কিন্ত কী কারণে এমন ঘটনা ঘটেছে, মেট্রো তরফে তা জানানো হয়নি বলে অভিযোগ। তাতে আতঙ্ক আরও বাড়ে।  এদিকে রবীন্দ্র স্টেশনে যখন এই পরিস্থিতি, ঠিক তখনই কবি সুভাষ স্টেশন থেকে দমদমগামী একটি রেক এসে পৌঁছায় স্টেশনে।  তড়িঘড়ি ওই রেক থেকে সমস্ত যাত্রীকে রবীন্দ্রসদন স্টেশনে নামিয়ে দেন মেট্রোর কর্মীরা। টালিগঞ্জ থেকে নেতাজি ভবন পর্যন্ত বিভিন্ন স্টেশনে আরও বেশ কয়েকটি ট্রেন দাঁড়িয়ে পড়ে বলে জানা গিয়েছে।  আপ ও ডাউন লাইনে বন্ধ করে দেওয়া হয় পরিষেবা। শেষ খবর অনুযায়ী, আপাতত ময়দান থেকে নোয়াপাড়া ও রবীন্দ্র সরোবর থেকে নোয়াপাড়া পর্যন্ত মেট্রো চলছে। 

ইদানিং মেট্রো বিভ্রাট প্রায় নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। পুজোর পর প্রথম কাজের দিনেই গীতাঞ্জলি স্টেশনে দমদমগামী মেট্রোর সামনে ঝাঁপ দিয়ে এক ব্যক্তি। মারাও যান তিনি। এই ঘটনার জেরে ব্যাহত হয় মেট্রো পরিষেবা। দীর্ঘক্ষণ কবি সুভাষ থেকে মহানায়ক উত্তমকুমার স্টেশন পর্যন্ত বন্ধ থাকে মেট্রো চলাচল।